করোনাভাইরাস : গুজব ও জবরদস্তি রোগী শনাক্তে বাধা সৃষ্টি করবে

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৪৯ পিএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
ফাইল ছবি

রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা বলেছেন, গুজব ও জবরদস্তি দুটোই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তে বাধা সৃষ্টি করবে। আর এ কারণে তথ্য ও অবস্থান গোপন করবে সন্দেহজনক রোগীরা।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় আইইডিসিআর মিলনায়তনে করোনা সংক্রমণ বিষয়ে নিয়মিত ব্রিফিংকালে তিনি এসব কথা বলেন।

আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, দেশ-বিদেশের বরাত দিয়ে নানা গুজবের সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে সামাজিক মাধ্যমে এর উদ্বেজনক প্রসার ঘটছে। এ ধরনের গুজবের জেরে সাতক্ষীরাতে একজন সন্দেহজনক রোগীর মায়ের দুঃখজনক মৃত্যু ঘটেছে। শুধু তাই নয়, কোনো কোনো স্থানে স্থানীয় জনসাধারণের মধ্যে এর ফলে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে এবং চীন ও সিঙ্গাপুর ফেরত কোনো কোনো যাত্রীর ব্যক্তিগত ও সামাজিক নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি হয়েছে। এতে প্রভাবিত হয়ে বেশকিছু স্থানে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃংখলা বাহিনী চীন ও সিঙ্গাপুর ফেরত যাত্রীদের প্রতি জবরদস্তি আচরণ করছে। আইইডিসিআর হটলাইনে যোগাযোগ করে তাদের পরামর্শ অনুযায়ী কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান জানান তিনি।

ডা. মীরজাদি সেব্রিনা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইইডিসিআরের ভাইরোলজি ল্যাবরেটরিতে সন্দেহজনক আক্রান্ত দুই ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাদের নমুনাতে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

তিনি আরও জানান, চীনের উহান ফেরত ৩১২ জন যাত্রীর সবাই সুস্থ রয়েছেন। তাদেরকেকোয়ারেন্টাইন পরবর্তী আরও ১০ দিন ৩১২ জনকে সীমিত চলাচল ও নিজেদের স্বাস্থ্য পরিস্থিতি অবহিত করতে আইইডিসিআরএর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এছাড়া নির্দিষ্ট নির্দেশনা দেয়া হয়েছে তাদের প্রতি। তাদের কেউ কেউ হটলাইনে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকেও তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে। তারা সবাই সুস্থ আছেন।

উল্লেখ্য, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে বেড়েই চলেছে মৃতের সংখ্যা। নতুন করে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮০৭ জন। সবমিলিয়ে করোনাভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৮৬৮ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৭২ হাজার ৩৫৫ জন।

মঙ্গলবার চীনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, হুবেই প্রদেশে করোনভাইরাসে আরও ৯৩ জন লোক মারা গেছে। করোনাভাইরাস শুরু হওয়ার পর থেকে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৮৬৮ জনে।

এমইউ/এমএসএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

১২,০৩,১৩০
আক্রান্ত

৬৪,৭৪৪
মৃত

২,৪৬,৭৬০
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ৭০ ৩০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৩,১১,৬৩৭ ৮,৪৫৪ ১৪,৮২৮
স্পেন ১,২৬,১৬৮ ১১,৯৪৭ ৩৪,২১৯
ইতালি ১,২৪,৬৩২ ১৫,৩৬২ ২০,৯৯৬
জার্মানি ৯৬,০৯২ ১,৪৪৪ ২৬,৪০০
ফ্রান্স ৮৯,৯৫৩ ৭,৫৬০ ১৫,৪৩৮
চীন ৮১,৬৬৯ ৩,৩২৯ ৭৬,৯৬৪
ইরান ৫৫,৭৪৩ ৩,৪৫২ ১৯,৭৩৬
যুক্তরাজ্য ৪১,৯০৩ ৪,৩১৩ ১৩৫
১০ তুরস্ক ২৩,৯৩৪ ৫০১ ৭৮৬
১১ সুইজারল্যান্ড ২০,৫০৫ ৬৬৬ ৬,৪১৫
১২ বেলজিয়াম ১৮,৪৩১ ১,২৮৩ ৩,২৪৭
১৩ নেদারল্যান্ডস ১৬,৬২৭ ১,৬৫১ ২৫০
১৪ কানাডা ১৪,০১৮ ২৩৩ ২,৬০৩
১৫ অস্ট্রিয়া ১১,৭৮১ ১৮৬ ২,৫০৭
১৬ পর্তুগাল ১০,৫২৪ ২৬৬ ৭৫
১৭ ব্রাজিল ১০,৩৬০ ৪৪৫ ১২৭
১৮ দক্ষিণ কোরিয়া ১০,২৩৭ ১৮৩ ৬,৪৬৩
১৯ ইসরায়েল ৮,০১৮ ৪৬ ৪৭৭
২০ সুইডেন ৬,৪৪৩ ৩৭৩ ২০৫
২১ অস্ট্রেলিয়া ৫,৬৩৫ ৩৪ ৫৮৫
২২ নরওয়ে ৫,৫৫০ ৬২ ৩২
২৩ রাশিয়া ৪,৭৩১ ৪৩ ৩৩৩
২৪ আয়ারল্যান্ড ৪,৬০৪ ১৩৭ ২৫
২৫ চেক প্রজাতন্ত্র ৪,৪৭২ ৫৯ ৭৮
২৬ চিলি ৪,১৬১ ২৭ ৫২৮
২৭ ডেনমার্ক ৪,০৭৭ ১৬১ ১,২৮৩
২৮ পোল্যান্ড ৩,৬২৭ ৭৯ ১১৬
২৯ রোমানিয়া ৩,৬১৩ ১৪৬ ৩২৯
৩০ ভারত ৩,৫৮৮ ৯৯ ২২৯
৩১ মালয়েশিয়া ৩,৪৮৩ ৫৭ ৯১৫
৩২ ইকুয়েডর ৩,৪৬৫ ১৭২ ১০০
৩৩ জাপান ৩,১৩৯ ৭৭ ৫১৪
৩৪ ফিলিপাইন ৩,০৯৪ ১৪৪ ৫৭
৩৫ পাকিস্তান ২,৮৮০ ৪৫ ১৭০
৩৬ লুক্সেমবার্গ ২,৭২৯ ৩১ ৫০০
৩৭ সৌদি আরব ২,৩৭০ ২৯ ৪২০
৩৮ থাইল্যান্ড ২,১৬৯ ২৩ ৬৭৪
৩৯ ইন্দোনেশিয়া ২,০৯২ ১৯১ ১৫০
৪০ মেক্সিকো ১,৮৯০ ৭৯ ৬৩৩
৪১ ফিনল্যাণ্ড ১,৮৮২ ২৫ ৩০০
৪২ পানামা ১,৮০১ ৪৬ ১৩
৪৩ পেরু ১,৭৪৬ ৭৩ ৯১৪
৪৪ গ্রীস ১,৬৭৩ ৬৮ ৭৮
৪৫ সার্বিয়া ১,৬২৪ ৪৪ ৫৪
৪৬ দক্ষিণ আফ্রিকা ১,৫৮৫ ৯৫
৪৭ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ১,৫৭৮ ৭৭ ১৭
৪৮ সংযুক্ত আরব আমিরাত ১,৫০৫ ১০ ১২৫
৪৯ আর্জেন্টিনা ১,৪৫১ ৪৩ ২৭৯
৫০ আইসল্যান্ড ১,৪১৭ ৩৯৬
৫১ কলম্বিয়া ১,৪০৬ ৩২ ৮৫
৫২ কাতার ১,৩২৫ ১০৯
৫৩ আলজেরিয়া ১,২৫১ ১৩০ ৯০
৫৪ ইউক্রেন ১,২২৫ ৩২ ২৫
৫৫ সিঙ্গাপুর ১,১৮৯ ২৯৭
৫৬ ক্রোয়েশিয়া ১,১২৬ ১২ ১১৯
৫৭ মিসর ১,০৭০ ৭১ ২৪১
৫৮ এস্তোনিয়া ১,০৩৯ ১৩ ৫৯
৫৯ নিউজিল্যান্ড ১,০৩৯ ১৫৬
৬০ স্লোভেনিয়া ৯৭৭ ২২ ৭৯
৬১ মরক্কো ৯১৯ ৫৯ ৬৬
৬২ ইরাক ৮৭৮ ৫৬ ২৫৯
৬৩ হংকং ৮৬২ ১৭৩
৬৪ লিথুনিয়া ৮১১ ১১
৬৫ আর্মেনিয়া ৭৭০ ৪৩
৬৬ মলদোভা ৭৫২ ১২ ২৯
৬৭ হাঙ্গেরি ৭৩৩ ৩৪ ৬৬
৬৮ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১১ ৬১৯
৬৯ বাহরাইন ৬৮৮ ৪২৩
৭০ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ৬২৪ ২১ ৩০
৭১ ক্যামেরুন ৫৫৫ ১৭
৭২ তিউনিশিয়া ৫৫৩ ১৮
৭৩ কাজাখস্তান ৫৫১ ৩৬
৭৪ বুলগেরিয়া ৫২২ ১৮ ৩৭
৭৫ আজারবাইজান ৫২১ ৩২
৭৬ লেবানন ৫২০ ১৭ ৫৪
৭৭ লাটভিয়া ৫০৯
৭৮ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ৪৮৩ ১৭ ২০
৭৯ কুয়েত ৪৭৯ ৯৩
৮০ স্লোভাকিয়া ৪৭১ ১০
৮১ এনডোরা ৪৬৬ ১৭ ২১
৮২ বেলারুশ ৪৪০ ৫৩
৮৩ কোস্টারিকা ৪৩৫ ১৩
৮৪ সাইপ্রাস ৪২৬ ৩৩
৮৫ উরুগুয়ে ৪০০ ৯৩
৮৬ তাইওয়ান ৩৬৩ ৫৪
৮৭ আফগানিস্তান ৩৩৭ ১৫
৮৮ রিইউনিয়ন ৩৩৪ ৪০
৮৯ আলবেনিয়া ৩৩৩ ২০ ৯৯
৯০ জর্ডান ৩২৩ ৭৪
৯১ বুর্কিনা ফাঁসো ৩১৮ ১৬ ৬৬
৯২ ওমান ২৯৮ ৬১
৯৩ উজবেকিস্তান ২৯৮ ২৫
৯৪ কিউবা ২৮৮ ১৫
৯৫ হন্ডুরাস ২৬৮ ২২
৯৬ চ্যানেল আইল্যান্ড ২৬২ ১৩
৯৭ সান ম্যারিনো ২৫৯ ৩২ ২৭
৯৮ আইভরি কোস্ট ২৪৫ ২৫
৯৯ ভিয়েতনাম ২৪০ ৯০
১০০ সেনেগাল ২১৯ ৭২
১০১ ফিলিস্তিন ২১৭ ২১
১০২ নাইজেরিয়া ২১৪ ২৫
১০৩ ঘানা ২১৪ ৩১
১০৪ মালটা ২১৩
১০৫ মন্টিনিগ্রো ২০১
১০৬ মরিশাস ১৯৬
১০৭ ফারে আইল্যান্ড ১৮১ ৯৩
১০৮ শ্রীলংকা ১৬৬ ২৭
১০৯ জর্জিয়া ১৬২ ৩৬
১১০ বলিভিয়া ১৫৭ ১০
১১১ ভেনেজুয়েলা ১৫৫ ৫২
১১২ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ১৫৪ ১৮
১১৩ কিরগিজস্তান ১৪৭
১১৪ মার্টিনিক ১৪৫ ২৭
১১৫ নাইজার ১৪৪
১১৬ ব্রুনাই ১৩৫ ৬৬
১১৭ গুয়াদেলৌপ ১৩৪ ২৪
১১৮ মায়োত্তে ১৩৪ ১৪
১১৯ কেনিয়া ১২৬
১২০ আইল অফ ম্যান ১২৬
১২১ কম্বোডিয়া ১১৪ ৫০
১২২ গিনি ১১১
১২৩ প্যারাগুয়ে ১০৪ ১২
১২৪ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১০৩
১২৫ রুয়ান্ডা ১০২
১২৬ জিব্রাল্টার ৯৮ ৫২
১২৭ লিচেনস্টেইন ৭৭
১২৮ মাদাগাস্কার ৭০
১২৯ মোনাকো ৬৬
১৩০ আরুবা ৬৪
১৩১ এল সালভাদর ৬২
১৩২ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৬১ ২২
১৩৩ গুয়াতেমালা ৬১ ১৫
১৩৪ জ্যামাইকা ৫৫
১৩৫ বার্বাডোস ৫২
১৩৬ জিবুতি ৫০
১৩৭ উগান্ডা ৪৮
১৩৮ ম্যাকাও ৪৪ ১০
১৩৯ টোগো ৪১ ১৭
১৪০ মালি ৪১
১৪১ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ৪০
১৪২ জাম্বিয়া ৩৯
১৪৩ ইথিওপিয়া ৩৮
১৪৪ বারমুডা ৩৭ ১৪
১৪৫ কেম্যান আইল্যান্ড ৩৫
১৪৬ সেন্ট মার্টিন ২৯
১৪৭ ইরিত্রিয়া ২৯
১৪৮ বাহামা ২৮
১৪৯ সিন্ট মার্টেন ২৫
১৫০ গায়ানা ২৪
১৫১ কঙ্গো ২২
১৫২ গ্যাবন ২১
১৫৩ মায়ানমার ২১
১৫৪ হাইতি ২১
১৫৫ তানজানিয়া ২০
১৫৬ মালদ্বীপ ১৯ ১৩
১৫৭ লিবিয়া ১৮
১৫৮ গিনি বিসাউ ১৮
১৫৯ নিউ ক্যালেডোনিয়া ১৭
১৬০ সিরিয়া ১৬
১৬১ বেনিন ১৬
১৬২ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ১৬
১৬৩ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ১৫
১৬৪ ডোমিনিকা ১৪
১৬৫ মঙ্গোলিয়া ১৪
১৬৬ নামিবিয়া ১৪
১৬৭ সেন্ট লুসিয়া ১৪
১৬৮ গ্রেনাডা ১২
১৬৯ ফিজি ১২
১৭০ কিউরাসাও ১১
১৭১ গ্রীনল্যাণ্ড ১১
১৭২ সুদান ১০
১৭৩ সুরিনাম ১০
১৭৪ লাওস ১০
১৭৫ মোজাম্বিক ১০
১৭৬ সিসিলি ১০
১৭৭ অ্যাঙ্গোলা ১০
১৭৮ লাইবেরিয়া ১০
১৭৯ জান্ডাম (জাহাজ)
১৮০ জিম্বাবুয়ে
১৮১ সেন্ট কিটস ও নেভিস
১৮২ ইসওয়াতিনি
১৮৩ চাদ
১৮৪ নেপাল
১৮৫ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক
১৮৬ ভ্যাটিকান সিটি
১৮৭ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড
১৮৮ সোমালিয়া
১৮৯ কেপ ভার্দে
১৯০ মৌরিতানিয়া
১৯১ মন্টসেরাট
১৯২ সেন্ট বারথেলিমি
১৯৩ নিকারাগুয়া
১৯৪ ভুটান
১৯৫ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড
১৯৬ বতসোয়ানা
১৯৭ গাম্বিয়া
১৯৮ বেলিজ
১৯৯ মালাউই
২০০ সিয়েরা লিওন
২০১ পশ্চিম সাহারা
২০২ এ্যাঙ্গুইলা
২০৩ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ
২০৪ বুরুন্ডি
২০৫ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস
২০৬ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড
২০৭ পাপুয়া নিউ গিনি
২০৮ পূর্ব তিমুর
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।