বিএসএমএমইউতে অপরিণত নবজাতকের চোখের চিকিৎসায় ক্লিনিক

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:১০ পিএম, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) অপরিণত নবজাতকদের চোখের চিকিৎসায় রেটিনোপ্যাথি অব প্রিমেচিউরিটি (আরওপি) ক্লিনিকের উদ্বোধন করা হয়েছে। সপ্তাহে তিনদিন শনি, সোম ও বুধবার এই ক্লিনিকে অপরিণত নবজাতকদের সেবা দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেবিন ব্লকের তৃতীয় তলায় এই ক্লিনিকের উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. জাফর খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যশিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ, নবজাতক বিভাগের অধ্যাপক ও বিএমডিসির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা, বিএসএমএমইউ পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. নজরুল ইসলাম খান, চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. শফিকুল ইসলাম, চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ডা. নুজহাত চৌধুরী প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, রেটিনোপ্যাথি অব প্রিমেচিউরিটি (আরওপি) ক্লিনিক চালু হওয়ায় অনেক নবজাতক পৃথিবীর আলো দেখতে পাবে। অন্ধত্ব প্রতিরোধ ও অন্ধত্বনিবারণ ও দূরীকরণে আরওপি ক্লিনিক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, যে সকল নবজাতক অপরিণত বয়সে স্বল্প ওজন নিয়ে জন্ম নেয় তাদের অনেকের চোখে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা থাকে। সময়মতো চিকিৎসা না হলে কোনো কোনো নবজাতক অন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু চিকিৎসার মাধ্যমে তাদের অন্ধত্বের অভিশাপ থেকে রক্ষা করা সম্ভব।

বিএসএমএমইউ উপাচার্য আরও বলেন, একান্ত প্রয়োজন না হলে ৩২ সপ্তাহের আগে গর্ভবতী মায়েদের সিজারিয়ান সেকশন (সিজার) না করাই উত্তম।

এমইউ/বিএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]