অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারে সচেতন হতে বললেন চট্টগ্রামের বিশেষজ্ঞরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১৪ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০২১

সঠিক সংক্রমণে সঠিকভাবে অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারে নির্দেশনা দিয়েছেন চট্টগ্রামের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। বুধবার (২৪ নভেম্বর) বিশ্ব অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এই আহ্বান জানান।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অংশ নেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সুমন মুৎসুদ্দী ও সহকারী পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. কমরুল আজাদ।

ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, সব ধরনের রোগে অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োজন হয় না। তাই বিনা প্রয়োজনে কোনো ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া যাবে না। চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সঠিক সংক্রমণে সঠিক অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করতে হবে। অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্স নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সম্পন্ন না করলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকে না। এর অপব্যবহার শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। জ্বর বা জঠিল রোগ হলে রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের শরণাপন্ন হয়ে পরামর্শ অনুযায়ী অ্যান্টিবায়োটিক ও অন্যান্য ওষুধ সেবন করতে হবে।

jagonews24

তিনি আরও বলেন, সব ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে। শুধু অসুস্থ মানুষ নয়, গবাদি পশু, হাঁস-মুরগী, মাছের ক্ষেত্রেও নিজে নিজে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল ওষুধ দেওয়া যাবে না। অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স হলে শরীরের ব্যাকটেরিয়াগুলো মরে যায়। ফলে আর কোনো অ্যান্টিবায়োটিক শরীরের জন্য কার্যকর হয় না। এ ব্যাপারে ডাক্তার ও রোগীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।

সভায় অন্যান্য বক্তারা বলেন, অ্যান্টিবায়োটিক শরীরের জন্য খুবই প্রয়োজন। কোন রোগের জন্য কোন ওষুধ তা নিশ্চিত না হয়ে ওষুধ প্রেসক্রাইব না করতে চিকিৎসকদের আন্তরিক থাকতে হবে। রোগ সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে অ্যান্টিবায়োটিক দিতে হবে। ব্যবস্থাপত্র ছাড়া সব ধরনের ওষুধ বিক্রয় থেকে ফার্মেসি মালিকদেরকেও বিরত থাকতে হবে। অ্যান্টিবায়োটিকের উপকারিতা-অপকারিতা সম্পর্কে সচেতন করা গেলে মানুষ এর অপব্যবহার থেকে বিরত থাকবে।

মিজানুর রহমান/ইএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]