বিএসএমএমইউতে বাতের রোগীদের সুচিকিৎসায় চালু হবে দুটি নতুন বিভাগ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:৪৩ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২

দেশে বাত রোগে আক্রান্ত রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) জেনারেল রিউমাটোলজি ও ইমিউনো রিউমাটোলজি নামে নতুন দুটি বিভাগ চালু হবে। রোববার (৪ ডিসেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৮তম সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এছাড়া বিভিন্ন ডিসিপ্লিনে এমডি ও এমএস ‘ফেইজ এ’ তে মার্চ ২০২৩ থেকে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি, অ্যাডভান্স ফেলোশিপ প্রোগ্রাম চালু, ইন্টিগ্রেটেড রিসার্চ সেল তৈরি এবং প্যাথলজি বিভাগের অ্যাডভান্স ফেলোশিপ ইন হিস্টোপ্যাথলজি-সাইটোপ্যাথলজি সংক্রান্ত ফেলোশিপ কোর্স ও কোর্স কারিকুলাম অনুমোদিত হয়। এ সিন্ডিকেট সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএসএমএমইউ উপাচার্য় অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

সভাপতির বক্তৃতায় উপাচার্য বলেন, করোনা মহামারির সময় রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের চিকিৎসকরা প্রমাণ করেছেন, দেশের রোগীদের চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যাওয়া প্রয়োজন নেই। দেশের রোগীদের বাংলাদেশের চিকিৎসকরাই চিকিৎসাসেবা দিতে সক্ষম।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যসেবা খাত বিষয়ে ভিশন ২০৪১ এর লক্ষ্য বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের রোগীদের উন্নত চিকিৎসেবা দেওয়ার লক্ষ্যে ওই সময়ে দেশে কত সংখ্যক চিকিৎসক, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক প্রয়োজন হবে তা নির্ধারণ করতে কার্যকরী উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

সভায় উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. জাহিদ হোসেন, উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) অধ্যাপক ডা. একেএম মোশাররফ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল, ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন, ডিন অধ্যাপক ডা. শিরিন তরপদার, ডিন অধ্যাপক ডা. মাসুদা বেগম, ডিন অধ্যাপক ডা. দেবব্রত বণিক, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুর রহমান দুলাল, রেজিস্ট্রার ডা. স্বপন কুমার তপাদারসহ বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন ইনস্টিটিউটের পরিচালক ও মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষরা উপস্থিত ছিলেন।

এমইউ/এমআইএইচএস/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।