লকডাউন নেই, খুশিতে আত্মহারা মেলবোর্নের মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:৩১ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০২১

অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের মানুষ লকডাউনকে বিদায় জানালো অবশেষে। করোনা মহামারির মধ্যে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি দিন লকডাউনে থাকা শহর হলো এটি। অবশেষে ছয় দফায় ২৬২ দিনের অপেক্ষা শেষ হলো শহরটির বাসিন্দাদের।

ভিক্টোরিয়া রাজ্যের প্রধান ড্যানিয়েল অ্যানড্রিউস স্থানীয় সময় রোববারই (১৭ অক্টোবর) লকডাউন সমাপ্তির ঘোষণা দিয়েছিলেন। সেসময় তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ১১ টা ৫৯ মিনিট থেকে আর কোনো লকডাউন নয়, কোনো কারফিউ নয়, বাড়ি থেকে বের হতে কোনো বাধা নেই।

Australia2.jpg

ভিক্টোরিয়ার রাজধানী মেলবোর্নের ৫০ লাখ মানুষ ২০২০ সালে করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে ঘরবন্দি ছিলেন। লকডাউন তুলে নেওয়ায় এবার তারা শ্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন। চারিদিকে যেন খুশির আমেজ। রাস্তায় বের হয়ে, ক্যাফেতে বা বারে বসে লকডাউন সমাপ্তি উদযাপন করছেন অনেকেই।

অস্ট্রেলিয়া কোভিড-শূন্য কৌশলকে কাজে লাগিয়ে মহামারিতে সাফল্য লাভ করেছে। দেশটির কর্তৃপক্ষ বলছে, এখন করোনাকে সঙ্গে নিয়ে বসবাস করলেও সমস্যা নেই। কারণ এরই মধ্যে ৮০ শতাংশ লোককে পুরোপুরি টিকার আওতায় আনা গেছে।মেলবোর্নের ৭০ শতাংশ মানুষকে দুই ডোজ টিকা দেওয়া সম্পন্ন হওয়ার কথা জানা গেছে।

Australia2.jpg

করোনা ঠেকাতে শুরু থেকেই সাফল্য দেখিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া কিন্তু পরবর্তীতে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে। আবারও কয়েক দফায় লকডাউন বাড়ানো হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয় সাধারণ মানুষ। লকডাউন-বিরোধী বিক্ষোভ কর্মসূচিও পালন করে তারা।

অস্ট্রেলিয়ার সিডনি, মেলবোর্ন শহরে লকডাউন-বিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেয় হাজার হাজার মানুষ। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষও বাধে তাদের। যদিও পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে দেশটির আইনশঙ্খলা রক্ষাবাহিনী।

সূত্র: বিবিসি, আল জাজিরা

এসএনআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]