জেরুজালেম ইস্যুতে সাহসী পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ মুসলিম নেতারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪৪ এএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭

তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে বুধবার ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) বৈঠকে অংশ নেন ৫৭টি মুসলিম দেশের নেতারা। তবে এমন কোনো কৌশল তারা তুলে ধরতে পারেননি যা দিয়ে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন স্বীকৃতির বিপক্ষে ভূমিকা রাখা যায়।

যদিও ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ওই সম্মেলনকে ওআইসির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং সফল সম্মেলন বলে উল্লেখ করেছেন। সম্মেলনে ট্রাম্পের গত সপ্তাহের সিদ্ধান্তের বিপক্ষে বিশ্ব নেতারা শুধুমাত্র নিন্দা আর সমালোচনা জ্ঞাপন করেছেন কিন্তু এর বিরুদ্ধে সাহসী কোনো পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছেন তারা।

এক বিবৃতিতে আব্বাস বলেন, ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্ত আন্তর্জাতিক আইন এবং জাতিসংঘের সিদ্ধান্তের অবমাননা করেছে। তিনি বিশ্বের বিভিন্ন দেশকে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি প্রদান এবং আন্তর্জাতিক সংস্থায় তাদের প্রতি সমর্থন জানানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

ওআইসির মহাসচিব ইউসেফ আল ওথাইমান এক সপ্তাহ আগের বিবৃতি পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, সংস্থাটি জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী এবং পবিত্র নগরীতে দূতাবাস স্থানান্তরে ট্রাম্পের সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখ্যান করেছে।

জর্ডানের বাদশাহ আবদুল্লাহ জোর দিয়ে বলেন, জেরুজালেম মুসলিম এবং খ্রিষ্টানদের প্রাণকেন্দ্র। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেন, মুসলিম দেশগুলোর এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নিন্দা জানানো উচিত।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেন, আমরা বহুবার বলেছি যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণযোগ্য নয়। জেরুজালেম ইস্যুতে বিশ্বজুড়ে তীব্র ক্ষোভ এবং নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

তবে এ বিষয়ে সৌদি আরবের তরফ থেকে তেমন কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন রেখেই নিশ্চুপ রয়েছে রিয়াদ।

এদিকে, ফিলিস্তিনে বিক্ষোভে অংশ নেয়া ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি বাহিনী আক্রমণ চালানোয় গত কয়েকদিনে ছয় ফিলিস্তিনি নিহত এবং আরো ১৫শ জন আহত হয়েছে। বিক্ষোভে অংশ নেয়া ১শ ফিলিস্তিনিকে আটক করা হয়।

টিটিএন/আরআইপি