সিরিয়া থেকে হোয়াইট হেলমেটের কয়েকশ উদ্ধারকর্মী জর্ডানে স্থানান্তর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:২৮ পিএম, ২৩ জুলাই ২০১৮

হোয়াইট হেলমেটের কয়েকশ উদ্ধারকর্মী এবং তাদের পরিবারকে রাতারাতি সিরিয়া থেকে জর্ডানে স্থানান্তর করা হয়েছে। মূলত পশ্চিমা দেশগুলোতে পুনর্বাসনের আশায় তাদের সিরিয়া থেকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ কাজে তাদের সহায়তা করেছে ইসরায়েল, যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের কিছু দেশ।

ওই উদ্ধারকর্মী দল সিরিয়ার বেসামরিক প্রতিরক্ষা বাহিনী হিসেবে পরিচিত। হোয়াইট হেলমেট পরিধানকারীরা সিরিয়ার যুদ্ধ-বিধ্বস্ত বিদ্রোহী অঞ্চলে অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে পরিচালিত সরকারি বাহিনীর অভিযানে উদ্ধারকর্মী এবং তাদের স্বজনদের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে এমন আশঙ্কায় তাদের সেখান থেকে সরিয়ে নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়।

রোববার তাদের জর্ডানে স্থানান্তর করা হয়। জর্ডান থেকে তাদের আগামী সপ্তাহে ইউরোপ বা কানাডায় পুনর্বাসন করা হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

জর্ডানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আয়মান সাফাদি এক টুইট বার্তায় বলেন, ৮শ' জনের প্রাথমিক তালিকা থেকে ৪২২ জনকে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এই চুক্তি সম্পর্কে অবহিত জর্ডানের বাইরের একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স বলছে, মূল পরিকল্পনা ছিল ৮শ' জনকে স্থানান্তরিত করার কিন্তু ৪২২ জনকে স্থানান্তরিত করা সম্ভব হয়েছে। ওই এলাকায় জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিস্তৃতি এবং সরকারি চেক পয়েন্টের কারণে সবাইকে স্থানান্তর করা সম্ভব হয়নি।

ইসরায়েল অধ্যূষিত গোলান অঞ্চলে কাজ করা কাতারের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিনিধি এই অভিযান সম্পর্কে বলেছেন, ‘এটা একটা উল্লেখযোগ্য বহুজাতিক এবং আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টা। জাতিসংঘের অন্তর্ভুক্তি এই প্রক্রিয়াকে আরও সহজ করেছে।’

ইসরায়েলের সেনাবাহিনী বলছে, যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় দেশগুলোর অনুরোধে সিরিয়ার একটি বেসামরিক সংগঠনের সদস্য এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের উদ্ধার করতে তারা একটি মানবিক অভিযান সস্পন্ন করেছে।

এক টুইটে তারা আরও জানিয়েছে, পরবর্তীতে এই বেসামরিকদের প্রতিবেশী দেশে স্থানান্তর করা হবে। কানাডার এক কর্মকর্তা সিবিসিকে জানায়, তারা হোয়াইট হেলমেটের ৫০ উদ্ধারকর্মী এবং তাদের পরিবারকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবে। গড়ে এই সংখ্যা দাঁড়ায় ২৫০।

একইভাবে জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস দেশটির বিল্ড ম্যাগাজিনকে বলেন, বার্লিনে ৫০ জনকে শরণার্থী হিসেবে গ্রহণ করা হবে।

সিরিয়ার বেসামরিক প্রতিরক্ষা প্রধান রাইদ আল-সালাহ আল-জাজিরাকে বলেন, তাদের কিছু স্বেচ্ছাসেবক স্থানান্তরিত হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘কিছু সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক এবং তাদের পরিবারকে মানবিক কারণে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। তারা একটি বিপজ্জনক এলাকায় আটকা পড়েছিল।’

টিটিএন/এমএস