যাত্রীদের নাক দিয়ে রক্তক্ষরণ, বিমানের জরুরি অবতরণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৮ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

 

বৃহস্পতিবার সকালে মুম্বাই থেকে যাত্রা করেছিল জেট এয়ারওয়েজের একটি বিমান। কিন্তু মাঝ আকাশে হঠাৎ করেই যাত্রীদের অনেকেই অসুস্থ বোধ করছিলেন। অনেকেরই মাথা ঘুরছিল আবার কারো কারো নাক দিয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছিল।

কেবিন ক্রুদের ভুলে মারাত্মক বিপদের মুখে পড়েছিলেন জেট এয়ারওয়েজের যাত্রীরা। একটুর জন্য রক্ষা পেলেন ১৬৬ জন যাত্রী। মাঝ আকাশে হঠাৎ করেই বিমানের কেবিনের এয়ার প্রেসার কমে যায়। যার ফলে, শ্বাসকষ্ট শুরু হয় যাত্রীদের। বেশ কয়েকজনের নাক এবং কান দিয়ে রক্ত পড়তে থাকে। মাথায় যন্ত্রণা অনুভব করেন অনেকেই। শেষ পর্যন্ত জরুরি ভিত্তিতে আবারও মুম্বাই বিমান বন্দরে ফিরিয়ে আনা হয় বিমানটিকে।

সকাল সাড়ে ৬টার দিকে জেট এয়ারওয়েজের ফ্লাইটটি মুম্বাই থেকে জয়পুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। কিছুক্ষণ পরেই হঠাৎ বিমানের এসি বিকল হয়ে যায়। কেবিন প্রেসার কমতে থাকে। যাত্রীদের নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল। বেরিয়ে আসে অক্সিজেন মাস্ক। কিন্তু সেই মাস্ক পরে আরও ভয়ানক অবস্থায় পড়েন যাত্রীরা।

যাত্রীদের প্রত্যেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। অন্তত ৩০ জন যাত্রীর নাক এবং কান থেকে রক্ত বের হতে শুরু করে। বাধ্য হয়ে বিমানটিকে মুম্বাই বিমান বন্দরে ফিরিয়ে আনা হয়। অসুস্থ যাত্রীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

প্রাথমিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৯ডব্লিউ ৬৯৭ ফ্লাইটের ক্রু সদস্যরা ভুল করে একটি সুইচ চাপার কারণেই এমন মারাত্মক ঘটনা ঘটেছে। কেবিনের এয়ার প্রেসার স্বাভাবিক রাখতে যে সুইচ চাপার কথা তার বদলে অন্য সুইচ চাপা হয়েছিল। এই ঘটনায় ক্ষমা চেয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছে জেট এয়ারওয়েজ। এই ঘটনার তদন্ত চলছে।

টিটিএন/আরআইপি