ব্রেক্সিট বিরোধে থেরেসা মে’র দলে পদত্যাগের হিড়িক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:২০ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে যদি তার ব্রেক্সিট বিষয়ক অবস্থান থেকে সরে না আসেন তাহলে তার দল কনজারভেটিভ পার্টির আরও দুই এমপি পদত্যাগ করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন। সম্প্রতি লেবার পার্টির আট ও থেরেসা মে’র কনজারভেটিভ পার্টির তিন সদস্য দল থেকে পদত্যাগ করে স্বতন্ত্র একটি জোট গঠন করেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, কনজারভেটিভ পার্টির ওই দুই হেভিওয়েট নেতা পদত্যাগের ব্যাপারে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন। কনজারভেটিভ দলীয় ওই দুই এমপি হলেন, দেশটির সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ডমিকিন গ্রিভ এবং সাবেক শিক্ষামন্ত্রী জাস্টিন গ্রিটিং।

কনজারভেটিভ পার্টির ওই দুই হেভিওয়েট নেতাই বলছেন, প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে যদি তার ব্রেক্সিট বিষয়ক অবস্থান থেকে সরে না আসেন তাহলে তারা পদত্যাগ করবেন। তাতে কোনো চু্ক্তি ছাড়াও যদি ব্রেক্সিট কার্যকর হয় আপত্তি নেই তাদের।

সাবেক শিক্ষামন্ত্রী জাস্টিন গ্রিটিং বলেন, তিনি শুধু অল্প সময়ের জন্য আছেন কী হয় দেখার জন্য। তারপরই তিনি পদত্যাগের কথা জানাবেন। তিনি পদত্যাগী ওই স্বতন্ত্র এমপিদের দলে যোগ দেবেন কি না এমন প্রশ্ন করা হলে বলেন, ‘যদি তেমন কিছু হয় তাহলে বিবেচনা করে দেখবো।’

গত বুধবার কনজারভেটিভ পার্টির তিন এমপি পদত্যাগ করেন। তারা হলেন, আন্না সউবরি, সারাহ ওলাস্টন ও হেইদি অ্যালেন। ব্রেক্সিটবিরোধী এবং সরকারের ব্রেক্সিট পরিকল্পনার কট্টর সমালোচনা করে তারা পদত্যাগ করেন।

তাদের আগে যুক্তরাজ্যের বিরোধী নেতা জেরেমি করবিনের দল লেবার পার্টি থেকে আট এমপি পদত্যাগ করে একটি স্বতন্ত্র জোট তৈরি করেন। সেই দলে যোগ দেয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন পদত্যাগ করা ওই তিন কনজারভেটিভ এমপি।

গত এক সপ্তাহে দুই দল থেকে মোট যে ১১ জন এমপি পদত্যাগ করলেন। পদত্যাগের কথা জানালেন থেরেসার মের দল কনজারভেটিব পার্টির দুই হেভিওয়েট এমপি। তাদের সবাই ব্রেক্সিটবিরোধী।

ব্রেক্সিট ইস্যু নিয়ে এমনিতেই কোণঠাসা প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। মরার ওপর খাড়ার ঘা হয়ে দেখা দিল দলীয় এমপিদের পদত্যাগের ঘোষণা। আগামী ২৯ মার্চ ইউররোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বিচ্ছেদ (ব্রেক্সিট) কার্যকরের পরিণতি কী হয় সেটাই এখন দেখার বিষয়।

এসএ/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :