সুদানে সরকার বিলুপ্ত করে প্রেসিডেন্টের জরুরি অবস্থা জারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:০৫ এএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশির দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার ভেঙ্গে এবং সব প্রদেশের গভর্নরদের পদচ্যুত করে গোটা দেশে জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশির জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেন। পরে অবশ্য তিনি সশস্ত্র বাহিনী থেকে নতুন করে প্রাদেশিক গভর্নর নিয়োগ দিয়েছেন।

সুদানের জাতীয় নিরপত্তা ও গোয়েন্দা সংস্থার (এনআইএসএস) পক্ষ থেকে অবশ্য এর আগে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট বশির ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন। উল্লেখ্য, দেশটিতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা সরকারবিরোধী বিক্ষোভের মুখে এমন সিদ্ধান্ত নিলেন প্রেসিডেন্ট।

সুদানের ওমদুরমান শহরে প্রেসিডেন্টের এমন ঘোষণার পর বিক্ষোভকারীরা রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন। কিন্তু পুলিশ ও নিরাপত্তাকর্মীরা বিক্ষোভকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস ছোড়ার মাধ্যমে তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

জাতির উদ্দেশে দেয়া ওই ভাষণে প্রেসিডেন্ট দেশটির পার্লামেন্টকে সংবিধান সংশোধন বিল স্থগিত করার আহ্বান জানান। কেননা সংবিধান সংশোধন না হলে তিনি আরও এক মেয়াদে ক্ষমতায় থাকতে পারবেন। ভাষণে তিনি দাবি করেন, দেশকে অস্থিতিশীল করে তোলার জন্যই সরকারবিরোধী এই বিক্ষোভ শুরু হয়েছে।

টেলিভিশনে দেয়া ওই ভাষণে তিনি বলেন, ‘আমি আগামী এক বছরের জন্য গোটা দেশে জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিলাম। তাছাড়া কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক সরকারকে ভেঙে দেওয়ারও ঘোষনা দিচ্ছি আমি।’

প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা বলে এরপর তিনি দেশটির ১৮টি প্রদেশের গভর্নর হিসেবে সেনাবাহিনী ও নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তাদের নিয়োগ দিয়ে দুটি ডিক্রি জারি করেন। তবে বিদায়ী মন্ত্রিপরিষদের মধ্যে পররাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা, আইন ও বিচারবিষয়ক মন্ত্রীসহ পাঁচ মন্ত্রীকে নিজ নিজ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন অব্যাহত রাখতে বলেন।

এসএ/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :