ক্রাইস্টচার্চের মতো হামলা লন্ডনেও হতে পারতো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৪৭ পিএম, ২৫ মার্চ ২০১৯

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসীর বন্দুক হামলায় অর্ধশত নিহত হওয়ার মতো নৃশংস ঘটনা লন্ডনের একটি মসজিদেও হতে পারতো। উত্তর লন্ডনের ফিন্সবারি পার্ক মসজিদের ইমাম বিবিসিকে এ কথা জানিয়েছেন।

বর্তমানে নিউজিল্যান্ডে অবস্থানরত মসজিদটির ইমাম মোহাম্মদ মাহমুদ বলেন, ক্রমবর্ধমান ইসলাম বিদ্বেষের রোষানলে লন্ডনের ওই মসজিদেও এমন হামলার ঘটনা ঘটতে পারতো।

২০১৭ সালের জুনে ইমাম মাহমুদ একজন ব্যক্তি আটকান যিনি মসজিদের ভেতর অনেক মুসল্লি থাকা অবস্থায় গাড়ি হামলা করার চেষ্টা করেন। তবে প্রতিহত হওয়ার পর পালিয়ে যান সম্ভাব্য হামলাকারী।

প্রসঙ্গত, নিউজিল্যান্ডে হামলার ঘটনার পর যুক্তরাজ্যের মসজিদেগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। তবুও ক্রাইস্টচার্চের হামলার একদিন পর লন্ডনেও এক মুসলিম নারীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে ভয়াবহ সেই হামলার পর প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য লন্ডনের ফিন্সবারি পার্ক মসজিদের ইমাম মোহাম্মদ মাহুমুদকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সেই হামলায় অর্ধশত মুসল্লি নিহত ও আরও ৪২ জন গুরতর আহত হয়েছেন।

ইমাম মোহাম্মদ মাহমুদ বিবিসিকে বলেন, ‘যুক্তরাজ্যেও যে এমন হামলা হতে পারতো সে সম্পর্কে আমরা সতর্ক ছিলাম। আমরা আল্লাহ’র কাছে দোয়া করি যেন এমনটা কখনো না হয়।’

মুসলিমদের নিরাপত্তাহীনতার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমরা যে হামলার ঘটনা প্রত্যক্ষ করলাম সেখান থেকে শিক্ষা নেয়া উচিত যে উগ্র ডানপন্থী, ইসলাম বিদ্বেষ এবং শ্বেতাঙ্গ চরমপন্থীদের সহিংস ও হত্যার মানসিকতা তৈরি হওয়ায় আমরা কতটা হুমকির মুখে আছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘যুক্তরাজ্যের এখান থেকে শিক্ষা নেয়া উচিত কীভাবে গোটা জাতি ভালো নেতৃত্বের মাধ্যমে একতাবদ্ধ থাকতে পারে। তাছাড়া এমন হামলার ঝুঁকি থেকে নিরাপদে থাকতে শুধু মুখে বলে নয় যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে আমাদের।’

ইমাম মাহমুদ বলেন, তিনি নিউজিল্যান্ড গেছেন মসজিদে হামলায় নিহতদের স্মরণ এবং এবং সন্ত্রসাবাদসহ সন্ত্রাসী হামলার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে। গোটা বিশ্বে মুসলিম উম্মাহ ও মানবিক বোধসম্পন্ন মানুষ যদি কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলে তাহলে আর কাউকে এমন হামলার শিকার হতে হবে না বলেও জানান তিনি।

এসএ/জেআইএম