ভারতে মাদরাসায় শিকলে বাঁধা শিশুশিক্ষার্থী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৩৯ এএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ভারতের মধ্যপ্রদেশের ভোপালে মাদরাসায় ১০ বছর বয়সী শিশু শিক্ষার্থীকে শিকল দিয়ে বেঁধে, তালা লাগিয়ে আটকে রাখা। রোববার সকালে ওই মাদরাসার আশপাশের মানুষজনের চোখে হঠাৎ বিষয়টি ধরা পড়ে।

তারা দেখতে পান, একটি ছেলের পা বাঁধা টিনের বাক্সের সঙ্গে। শিকল দিয়ে বাঁধার পর তাতে তালা লাগানো। তার সামনে আরেকটি ছোট ছেলে ঘুমিয়ে আছে। ওই ছেলেটির হাতে,পায়ে অবশ্য কোনো বাঁধন নেই।

তারা এও বুঝতে পারেন, ওই শিশু বারবার শিকল খুলে বেরোতে চাইছে। এসব দেখে স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশে খবর দেন। সকাল ১০টা নাগাদ ভোপাল থানার পুলিশ অভিযোগ পেয়ে পৌঁছায় ওই মাদরাসায়। স্থানীয় বাসিন্দাদের সাহায্যে গ্যাস কাটার দিয়ে শিকল কেটে মুক্ত করা হয় ওই শিশুকে।

ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনের খবরে বলা হয়েছে, পুলিশ জানতে পেরেছে মাদরাসাটির বৈধ রেজিস্ট্রেশন নেই।

মাদরাসার মালিককে জেরা করেছে পুলিশ। পুলিশ জানায়, অবৈধ মাদরাসাটিতে ২২ জন শিক্ষার্থী পড়াশোনা করে। তাদের মধ্যে দুই জনকে মাদরাসায় রেখে পড়ানো হয়। গত দু মাস ধরে তারা মাদরাসাতেই থাকে। তাদের বয়স যথাক্রমে ১০ ও ৭ বছর।

মাদরাসার মালিকের দাবি, ১০ বছর বয়সী ছেলেটি প্রায়ই মাদরাসা থেকে পালিয়ে যেত। তাই তার অভিভাবকদের অনুমতি নিয়েই শিকল দিয়ে বেঁধে রাখা হয়। যাতে সে এদিক-ওদিক না যেতে পারে।

স্থানীয় থানার ওসি উমেশ যাদব বলেন, ‘মাদরাসার ম্যানেজারকে আমরা গ্রেফতার করেছি। তার বিরুদ্ধে জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্ট মেনে মামলা করা হয়েছে।’

জেডএ/পিআর