তেলক্ষেত্রে হামলা বিশ্বের জন্য পরীক্ষা : সৌদি যুবরাজ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৫৯ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সৌদি আরবের তেলক্ষেত্রে হামলার ঘটনায় দেশটির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বলেছেন, আন্তর্জাতিক স্থিতিশীলতার জন্য হুমকিস্বরূপ ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বৈশ্বিক ইচ্ছার বাস্তব পরীক্ষা এই হামলা। বুধবার দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সৌদি প্রেস অ্যাজেন্সির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, এ ধরনের হামলার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে কাজ করার জন্য বিশ্ব নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। এর অংশ হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলে সৌদি আরবের পাশে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

গত শনিবার সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলের বৃহত্তম আবকাইক ও খুরাইস তেলক্ষেত্রে ড্রোন হামলার পর ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। হামলার পর থেকে দেশটির তেল উৎপাদন দৈনিক ৫ দশমিক ৭ মিলিয়ন ব্যারেল কমে গেছে; যা বিশ্বের সরবরাহকৃত মোট তেলের প্রায় ৬ শতাংশ।

বিশ্বের বৃহত্তম তেলক্ষেত্র হিসেবে পরিচিত সৌদির আবকাইক ও খুরাইস তেলক্ষেত্র। এই দুই তেলক্ষেত্র আক্রান্ত হওয়ার পর বিশ্ব তেল বাজারে বড় ধরনের ধাক্কা লেগেছে। ১৯৯১ সালের পর বিশ্ব বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ।

তেলক্ষেত্রে ভয়াবহ হামলায় ব্যবহৃত অস্ত্র ‘ইরানের তৈরি’ বলে দাবি করেছে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট। সামরিক জোটের এই দাবির পর মধ্যপ্রাচ্যের চিরবৈরী প্রতিদ্বন্দী সৌদি আরব ও ইরানের মধ্যে সামরিক সংঘাতের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

ইরানের সঙ্গে সামরিক সংঘাতে যুক্তরাষ্ট্র এককভাবে প্রস্তুত রয়েছে বলে সোমবার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই সুর পাল্টে মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট আবার বলেছেন, তিনি কারো সঙ্গে যুদ্ধে যেতে চান না। তবে তার দেশ সৌদি আরবের পাশে রয়েছে।

তেলক্ষেত্রে শনিবারের হামলার এই ঘটনায় ইয়েমেনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুথি দায় স্বীকার করলেও সৌদি আরব ও যুক্তরাষ্ট্র বলছে, ইরানই হামলা চালিয়েছে। এর মাঝেই বুধবার সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরে গেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। মধ্যপ্রাচ্যের সাম্প্রতিক উত্তেজনার ব্যাপারে সৌদি ও আরব আমিরাতের দুই যুবরাজের সঙ্গে আলোচনা করবেন তিনি।

এদিকে, আরো হামলার আশঙ্কায় নিজ দেশের নাগরিকদের সৌদি সফরে সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের এক বিবৃতিতে ওই সতর্কতা জারি করা হয়।

সূত্র : রয়টার্স।

এসআইএস/এমকেএইচ