ইরানের তেল ট্যাঙ্কারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করেছে সৌদি?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:১৭ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০১৯

সৌদি আরবের বন্দর নগরী জেদ্দার সমুদ্র উপকূলে ইরানের তেলবাহী ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। ইরান বলছে, একবার নয় দুবার ট্যাঙ্কারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। সম্প্রতি রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি অ্যারামকোর দুটি বৃহৎ স্থাপনায় হামলার পর সৌদি প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি দিয়ে রেখেছিল।

ইরানের তেলের ট্যাঙ্কারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ফলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দেশটির জাতীয় তেল কোম্পানি ন্যাশনাল ইরানিয়ান অয়েল কোম্পানির সাবিতি ও শিনোপা নামের দুটি ট্যাঙ্কারের। সাবিতি থেকে তেল চুইয়ে পড়তে শুরু করেছে লোহিত সাগরে।

হামলার ফলে ওয়াশিংটন ও তেহরান উত্তেজনা নতুন রুপ নিয়েছে। শুক্রবার সকালে লোহি সাগরে ইরানের ট্যাঙ্কারে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার খবর ছড়িয়ে পড়তে না পড়তেই বিশ্ববাজারে তেলের দাম নিমিষেই ব্যারেল প্রতি এক মার্কিন ডলার বেড়ে গেছে।

ইরানের রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম বলছে, জেদ্দা থেকে প্রায় ৬০ মাইল দূরে অপরিশোধিত তেলের এই ট্যাঙ্কারে স্থানীয় সময় ভোর ৫টা নাগাদ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনা ঘটে। দ্বিতীয় হামলাটি হয়েছে তার বিশ মিনিট পর। মধ্যপ্রাচ্যে মোতায়েন মার্কিন নৌবাহিনীর মুখপাত্র হামলার কথা স্বীকার করলেও মন্তব্য করেননি।

গত মাসে হরমুজ প্রণালীতে একের পর এক ট্যাঙ্কার হামলার ঘটনায় ইরানের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইরান তা অস্বীকার করেছে। তবে আন্তর্জাতিক মহলের একাংশের দাবি সৌদি আরবের রাষ্ট্রায়ত্ত তেল শোধনাগারে হামলার ফল এই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা।

সৌদির রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি অ্যারামকোর দুটি গুরুত্বপূর্ণ তেল স্থাপনায় হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা হামলার দায় স্বীকার করলেও ট্রাম্প প্রশাসন তা প্রত্যাখ্যান করে ইরানকে দায়ী করেছেন। রিয়াদও ইরানকে দায়ী করে প্রতিশোধ নেয়ার ঘোষণা দেয়।

ইরানের সংবাদ সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, গত ১৪ আগস্ট সাবিতি ট্যাঙ্কারটির সঙ্গে শেষবার যোগাযোগ হয়। আর গত বৃহস্পতিবারও শিনোপার গতিবিধি সম্পর্কে জেনেছিল ইরান। কারা হামলা করেছে এবং এর নেপথ্যে কী তা খতিয়ে দেখেছে তেহরান। ট্যাঙ্কারের নাবিকসহ অন্যান্য কর্মীরা অক্ষত আছেন।

এসএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]