২ তুর্কি মন্ত্রণালয়, ৩ কর্মকর্তার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৫২ এএম, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

তুরস্কের দুই মন্ত্রণালয় এবং তিন শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে তুরস্কের সামরিক অভিযানকে কেন্দ্র করেই যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স জানিয়েছেন, তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ানকে ফোন করে তাৎক্ষণিক যুদ্ধবিরতির দাবি জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মাইক পেন্স আরও বলেন, যত দ্রুত সম্ভব তিনি ওই অঞ্চলে সফর করবেন। ইতোমধ্যেই উত্তর-পূর্বাঞ্চলে প্রবেশ করেছে সিরীয় সেনাবাহিনী। এতে করে তুর্কি নেতৃত্বাধীন বাহিনীর সঙ্গে তাদের বড় ধরনের সংঘর্ষ ঘটতে পারে।

এদিকে, কুর্দি নেতৃত্বাধীন বাহিনীর সঙ্গে সিরীয় সেনাবাহিনীর একটি চুক্তি হয়েছে। কুর্দিরা বলছে, সরকার দেশের উত্তরাঞ্চলের সীমান্তে সেনাবাহিনী পাঠিয়ে কুর্দিদের বিরুদ্ধে তুরস্কের চালানো আগ্রাসন প্রতিহত করার চেষ্টা করবে। গত সপ্তাহ পর্যন্তও কুর্দিরা মার্কিন জোটের সঙ্গেই ছিল।

কিন্তু গত সপ্তাহে সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নেয় যুক্তরাষ্ট্র। তারপরেই সেখানে সামরিক অভিযান শুরু করে তুর্কি বাহিনী। তুরস্কের তরফ থেকে বলা হয়েছে, তারা সিরিয়ার ভেতরে অন্তত ৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত কুর্দিদের হটিয়ে ‘নিরাপদ অঞ্চল’ তৈরি করতে চায়।

তুরস্কে থাকা ৩০ লাখের বেশি সিরীয় শরণার্থীকে ওই অঞ্চলে পুনর্বাসিত করার পরিকল্পনার কথাও বলেছে তুর্কি কর্তৃপক্ষ। সমালোচকরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে, এর ফলে ওই অঞ্চলে বসবাসরত কুর্দিরা জাতিগত নিধনের শিকার হতে পারে।

টিটিএন/এমএস