যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েও সিরিয়ায় হামলা চালাচ্ছে তুরস্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩৩ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৯

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে নিয়ে তুরস্কে সফররত যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স আজ শুক্রবার ঘোষণা দিয়েছেন সিরিয়ায় সামরিক অভিযান বন্ধে পাঁচ দিনের যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে আঙ্কারা। কিন্তু তুর্কি সেনারা যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে দেশটিতে আন্তঃসীমান্ত হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান এক অনলাইন প্রতিবেদনে প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে জানিয়েছে, শুক্রবার রাস আল আইন শহরে বিরতিহীনভাবে কামান ছোড়া ও সামরিক অভিযান অব্যাহত রেখেছে তুর্কি সেনারা। গত নয় ধরে চলা তুর্কি অভিযানের মূল দুটি এলাকার মধ্যে এটি একটি।

মাইক পেন্সের সঙ্গে বৈঠকের পর তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দিবিরোধী অভিযান ৫ দিনের জন্য বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছেন। মার্কিন সেনা প্রত্যাহার শুরু হওয়ার পর সেখানে কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সের (এসডিএফ) ওপর ৯ অক্টোবর থেকে হামলা শুরু করে তুরস্ক।

মূলত পাঁচ দিনের যুদ্ধবিরতিতে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এই শর্তে রাজি হয়েছেন যাতে এর মধ্যে তুরস্ক সীমান্ত লাগোয়া ৩০ কিলোমিটার এলাকা থেকে কুর্দি গেরিলাদের সরিয়ে নেয়া হয়। কিন্তু যুদ্ধবিরতিকে স্বাগত জানালেও ওই এলাকা থেকে সৈন্য প্রত্যহারে কুর্দিরা রাজি হয়েছে কিনা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, সিরিয়ার সঙ্গে সীমান্ত লাগোয়া ওই অঞ্চলে তুরস্কের সামরিক বাহিনী হামলা অব্যাহত রেখেছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেলে এরদোয়ানের সঙ্গে আঙ্কারায় কয়েক ঘণ্টা ধরে বৈঠক করে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দেন।

কুর্দি নেতৃত্বাধীন ফোর্স এসডিএফ এর কমান্ডার মাজলুম কোবানে যুদ্ধবিরতির কথা জানালেও তিনি বলেছেন, তার যোদ্ধারা এই যুদ্ধবিরতি মেনে চলতে রাজি আছে শুধু রাস আল আইন এবং তার আবিয়াদ উপত্যকায়।

এসএ/এমকেএইচ