নিউইয়র্ক থেকে সিডনি পৌঁছেছে বিশ্বের দীর্ঘতম বিরতিহীন ফ্লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৩৮ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক থেকে অস্ট্রেলিয়ার সিডনির দূরত্ব ১৬ হাজার ২০০ কিলোমিটার। দীর্ঘ এ যাত্রাপথে কোনো বিরতি ছাড়াই অস্ট্রেলিয়ার বিমান পরিবহন সংস্থা কান্তাস এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট গন্তব্যে পৌঁছেছে। আর এর মধ্য দিয়ে বিরতিহীনভাবে এত দূরের গন্তব্যে যাওয়ার রেকর্ড তৈরি হলো।

রোববার সকালে ৪৯ জন যাত্রীবাহী কান্তাস এয়ারওয়েজের ৭৮৭-৯ বোয়িং বিমানটি সিডনি পৌঁছায়। বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, দীর্ঘ এ যাত্রায় কোনো বিরতি ছাড়াই ১৯ ঘণ্টা ১৬ মিনিটে ১৬ হাজার ২০০ কিলোমিটারের পথ পাড়ি দিয়েছে ফ্লাইটটি।

শুক্রবার রাতে ফ্লাইটটি নিউইয়র্ক থেকে সিডনির উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে। বার্তা সংস্থা এএফপি অবশ্য জানিয়েছিল, দীর্ঘ এ যাত্রাপথ বিরতিহীনভাবে পাড়ি দিতে আনুমানিক ২২ ঘণ্টা সময় লাগতে পারে। তবে গন্তব্যে পৌঁছাতে অনুমানের চেয়ে প্রায় তিন ঘণ্টা সময় কম লেগেছে ফ্লাইটটির।

কান্তাস এয়ারওয়েজ ‘দীর্ঘ বিমানযাত্রা’ নামক পরীক্ষামূলক একটি কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। তারই অংশ হিসেবে এই ফ্লাইট পরিচালনা করেছে তারা। কান্তাস এয়ারওয়েজ এবার লন্ডন থেকে সিডনি পরীক্ষামূলক বিরতিহীন ফ্লাইট পরিচালনা করবে। তারপর যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন থেকে নিয়মিত ফ্লাইট চালু করবে তারা।

বিশ্বের কোনো ফ্লাইট বিরতিহীনভাবে এর আগে এত পথ অতিক্রম করেনি। কান্তাস এয়ারওয়েজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) তাদের এমন পদক্ষেপকে বিমান পরিবহন খাতের ‘যুগান্তকারী ঘটনা এবং ‘মাইলফলক’ হিসেবে অভিহিত করেছেন।

বিমানটির ভেতরে যাত্রীদের ব্যায়ামের ক্লাস এবং বিভিন্ন টাইম জোন পার হওয়ার সময় মানুষের শরীরে কী ধরনের প্রভাব পড়ে এটি পর্যবেক্ষণের পাশাপাশি পাইলটের মস্তিষ্কের তরঙ্গ নিরীক্ষণ, মেলাটোনিনের মাত্রা, সতর্কতার পরিমাণ এসব পরীক্ষা করে দেখা হয়।

লন্ডন থেকে সিডনি বিরতিহীন ফ্লাইট পরিচালনার কাজটি সফলভাবে সম্পন্ন হলে নিউইয়র্ক ও লন্ডন থেকে সিডনির উদ্দেশে নিয়মিত যাত্রীবাহী বিমান চালানোর সিদ্ধান্ত নেবে তারা। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হলে বিরতিহীন দীর্ঘতম এ যাত্রাপথের সেবা ২০২২ কিংবা ২০২৩ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে।

এসএ/এমএস