কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের সমালোচনা বন্ধ করবেন না মাহাথির

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩৩ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৯

অধিকৃত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের জেরে গত মাসে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভারতের তীব্র সমালোচনা করেছিলেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। তার এই সমালোচনার কারণে মালয়েশিয়ার পাম অয়েল আমদানি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে নয়াদিল্লি। এই সিদ্ধান্তের পরও কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের নেয়া সিদ্ধান্তের সমালোচনা থেকে বিরত না থাকার ঘোষণা দিয়েছেন মাহাথির মোহাম্মদ।

ভারতের এই পদক্ষেপকে বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পাম অয়েল উৎপাদনকারী ও রফতানিকারক মালয়েশিয়ার সঙ্গে একটি বাণিজ্য যুদ্ধ হিসেবে বর্ণনা করেছেন মাহাথির। চলতি বছর ভারতই মালয়েশিয়া থেকে সবচেয়ে বেশি পাম অয়েল ক্রয় করেছে।

গত মাসে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে অংশ নিয়ে মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, ভারত আক্রমণ করেছে এবং কাশ্মীর দখল করেছে। তার এই মন্তব্যের পর সোমবার ভারতের শীর্ষ ভোজ্য তেল আমদানিকারক সংস্থা মালয়েশিয়ার পাম অয়েল ক্রয় বন্ধ করতে সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

গত ৫ আগস্ট অধিকৃত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সংক্রান্ত সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করে ভারতের ক্ষমতাসীন নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার। বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর থেকেই কাশ্মীরে কারফিউ অব্যাহত রয়েছে।

মালয়েশিয়ার পার্লামেন্টের বাইরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, আমরা আমাদের মনের কথা বলেছি এবং এটা প্রত্যাহার কিংবা পরিবর্তন করব না।

সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে আমি যা বলেছি, সেটি হলো- জাতিসংঘের প্রস্তাবনা আমাদের সকলের মেনে চলা উচিত। অন্যথায় জাতিসংঘের কাজ কি? তিনি বলেন, ভারতের মুম্বাইভিত্তিক আমদানিকারক সংস্থা সলভেন্ট এক্সট্রাক্টরস এসোসিয়েশন পাম অয়েল ক্রয় স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে। তাদের এই সিদ্ধান্তে ফল কেমন হবে সেবিষয়ে আমরা পর্যালোচনা করছি।

মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, তারা ভারত সরকার নয়। সুতরাং আমরা এই মানুষদের সঙ্গে কীভাবে যোগাযোগ করতে পারি সেই উপায় খুঁজে বের করতে হবে। কারণ বাণিজ্য দুই পক্ষের একটি পদ্ধতি।

গত ৩১ মার্চ শেষ হওয়া অর্থ বছরে ভারতে ১০ দশমিক ৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থ রফতানি করেছে মালয়েশিয়া।

সূত্র : রয়টার্স।

এসআইএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]