মদ্যপ ছেলেকে পুড়িয়ে মারলেন বাবা-মা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৩৮ এএম, ১৩ নভেম্বর ২০১৯

মদ্যপ ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছিলেন মা-বাবা। দিনের পর দিন মদের জন্য বাবা মাকে মারধর, টাকাপয়সা চেয়ে অশান্তি করত ছেলে। অনেক দিন ধরেই ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ ছিলেন তারা।

দীর্ঘদিন ধরে ছেলের এমন অমানবিক অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে ছেলেকে বেঁধে জীবন্ত পুড়িয়ে মেরেছেন বাবা-মা। মঙ্গলবার রাতে এমন ঘটনা ঘটেছে ভারতের তেলঙ্গানার বরাঙ্গল গ্রামীণ জেলায়।

পুলিশ জানিয়েছে, মহেশ চন্দ্র (৪২) নামের এক ব্যক্তিকে তার বাবা-মা পুড়িয়ে হত্যা করেছে। বরঙ্গল এগ্রিকালচার মার্কেটে কেরানির কাজ করতেন মহেশ। ছেলেকে খুনের অভিযোগে ওই দম্পতিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ বলছে, হায়দরাবাদ মহেশ প্রায়ই মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরতেন। তারপর বাবা-মায়ের ওপর অত্যাচার শুরু করে দিতেন। মদ খাওয়ার টাকা চেয়ে প্রায় প্রতিদিনই অশান্তি করতেন তিনি। প্রতিদিনই সে তার বাবা-মাকে মারধর করত।

স্থানীয়দের দাবি, মহেশের স্ত্রীও তার অত্যাচারের শিকার ছিলেন। স্বামীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে দু’মাস আগেই বাপের বাড়িতে চলে যান তিনি। তারপর থেকেই ওই দম্পতির ওপর অত্যাচারের মাত্রা আরও বেড়ে যায়।

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফেরার পর মা-বাবার সঙ্গে মহেশ ঝামেলা শুরু করেন। এক সময় তাদের মারতে থাকে। ছেলের মারধর সহ্য করতে না পেরে মহেশকে বেঁধে ফেলেন তারা। এরপর তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন। ঘটনাস্থলেই মারা যান মহেশ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। মহেশের মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যান তারা। পুলিশ জানিয়েছে, তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। মহেশের মা-বাবাকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

টিটিএন/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]