মহারাষ্ট্রে মহানাটকের নেপথ্যে বিজেপির ৪০ হাজার কোটির তহবিল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৫৬ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯

ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যে তিনদিনের একটু বেশি সময়ের জন্য কেন মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন বিজেপির দেবেন্দ্র ফাডণবীস তা নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন দলটির সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত হেগড়ে। তার দাবি, রাজ্য সরকারকে কেন্দ্রীয় সরকারের বরাদ্দ করা ৪০ হাজার কোটির তহবিল বাঁচাতেই মহারাষ্ট্রে ‘মহানাটক’ করে বিজেপি।

দলের সাবেক এক মন্ত্রীর এমন মন্তব্যে অস্বস্তিতে পড়েছে কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকার। অনন্ত হেগড়ে বলেন, ‘আপনারা জানেন, মাত্র ৮০ ঘণ্টার জন্য মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন ফাডণবীস। তারপর পদত্যাগও করেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ না থাকা সত্ত্বেও কেন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ফাডণবীসকে শপথ করিয়েছিল বিজেপি আমরা তা জানতে পেরেছি।’

বিজেপি দলীয় সাবেক ওই মন্ত্রীর দাবি, ‘চল্লিশ হাজার কোটি রুপির তহবিলের জন্যই গোপনে দেবেন্দ্র ফাডণবীস মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট ক্ষমতায় এসে এই তহবিলের অপপ্রয়োগ করতে পারে এমন আশঙ্কা থেকেই এমন নাটক।’

তিনি বলেছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার ১৫ ঘণ্টার মধ্যেই হাজার কোটি সেই তহবিল কেন্দ্রীয় সরকারে কাছে ফেরত পাঠান দেবেন্দ্র ফাডণবীস। কোনোভাবেই যাতে ওই তহবিল নতুন সরকারের হাতে না আসে, সেজন্য এই নাটক মঞ্চস্থ করার সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছিল বিজেপি সরকার আর দলীয় নীতি নির্ধারকদের।’

তার এই দাবিকে ঘিরেই ইতোমধ্যেই ভারতের রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়ে গেছে। অবশ্য দেবেন্দ্র ফাডণবিশ অনন্ত হেগড়ের এমন অভিযোগ সরাসরি প্রত্যাখান করে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমার সম্পর্কে যা বলা হচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। মহারাষ্ট্র সরকার কখনোই কেন্দ্রের কাছে বুলেট ট্রেন প্রকল্পের জন্য অর্থ চায়নি।’

টানা অচলাবস্থার শেষে মধ্যরাতের টানটান নাটকের পর ন্যানশালিস্ট কংগ্রেসে পার্টির (এনসিপি) নেতা অজিত পওয়ারের সমর্থন নিয়ে ২৩ নভেম্বর ভোরবেল মহারাষ্ট্রে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন বিজেপির দেবেন্দ্র ফাডণবিশ। উপ-মুখ্যমন্ত্রী হন অজিত পওয়ার। কিন্তু এনসিপি সমর্থন দেয়নি দাবি করলে পরে ফাডণবিশ পদত্যাগ করেন।

এসএ/এমএস