ক্ষুধার জ্বালায় মাটি খেত শ্রীদেবীর ৬ সন্তান, এগিয়ে এল সরকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৫৩ এএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯

ঘর নেই, খাবার নেই; আছে পেটে ক্ষুধা। ক্ষুধার জ্বালায় বাধ্য হয়ে দারিদ্র্যপীড়িত এক দম্পতির ছয় সন্তানকে নোংরা মাটি খেতে হয়েছিল। ভারতের কেরালার রাজ্যের ঘটনা এটি। রাজ্যের তিরুবনন্তপুরমে রাজ্য সচিবালয় থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে শ্রীদেবী এবং তার স্বামী কুঞ্জুমন তাদের ছয় সন্তানের সঙ্গে একটি ঝোপঝাড়ে বাস করেন।

নিজের এবং সন্তানদের দূরবস্থার কথা জানিয়ে সরকারের কাছে চিঠি লিখতে বাধ্য হয়েছেন শ্রীদেবী। যদি তার সন্তানদের দায়িত্ব নেয় কেরালা সরকার। তিনি কর্তৃপক্ষকে বলেছিলেন যে তার ভাইবোনরাও ক্ষুধা নিবারণের জন্য কাদা খেয়েছিল।

মর্মান্তিক এ ঘটনায় কেরালার শিশুকল্যাণ কমিটি (সিডব্লিউসি) শ্রীদেবীর সাত এবং পাঁচ বছরের দুই ছেলে এবং চার ও দুই বছরের দুই মেয়েকে ডেকে ডিজ্ঞাসাবাদ করে। এরপরই এক মাসের দুই শিশুসহ শ্রীদেবীকে আশ্রয় দেয়া হয় এক সরকারি স্বেচ্ছাসেবী আশ্রমে।

ঘটনা জানাজানি হতেই নানা জায়গা থেকে সাহায্যের প্রতিশ্রুতি পাচ্ছেন শ্রীদেবী। মঙ্গলবার তিরুবনন্তপুরমের মেয়র কে শ্রীকুমার পৌরসভার একটি অফিসে চাকরির প্রস্তাব দিয়েছেন তাকে। সন্তানদের শিক্ষার পাশাপাশি মাথা গোঁজার জন্য ফ্ল্যাটের বন্দোবস্তরও আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

কেরালার স্টেট কাউন্সিল অব চাইল্ড ওয়েলফেয়ারের সাধারণ সম্পাদক দীপক এসপি জানান, ওই পরিবারের পুনর্বাসনের জন্য ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এদিকে রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা আশ্বস্ত করেছিলেন যে সরকার শ্রীদেবীর বাচ্চাদের দায়িত্ব নেবে। তিনি আশ্বাসও দিয়েছিলেন যে পরিবারে সম্ভাব্য সকল সহায়তা বাড়ানো হবে।

বিএ