আফগানিস্তানে গুলিতে জাপানি সাহায্য সংস্থার প্রধানসহ নিহত ৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:০২ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯

আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় জালালাবাদ শহরে বন্দুকধারীর গুলিতে দেশটিতে কর্মরত জাপানের সাহায্য সংস্থার প্রধানসহ ছয়জন নিহত হয়েছেন। বুধবার শহরের পথে তাদের বহনকারী গাড়িটিকে লক্ষ্য করে বন্দুকধারী গুলি ছুড়লে তারা নিহত হন। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে।

বুধবারের এই বন্দুক হামলার আগে গত সপ্তাহে দেশটির রাজধানী কাবুলে জাতিসংঘের একটি গাড়ি লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটে। আজকের এই ঘটনার পর বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘমেয়াদি যুদ্ধে বিধ্বস্ত দেশটিতে দাতব্য ও সাহায্য সংস্থাগুলোর মানবাধিকারমূলক কাজ করার ক্ষেত্রে শঙ্কা তৈরি করেছে।

পিস জাপান মেডিকেল সার্ভিসের প্রধান ডা. তিশতু নাকামুরা আফগানিস্তানের সেচপ্রকল্প ও কৃষিখাতের পুনর্গঠনে অনবদ্য অবদান রেখেছেন। এক দশকের বেশি সময় ধরে দেশটির উত্তরাঞ্চলে মানবিক সহায়তামূলক এসব কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ সম্প্রতি তিনি আফগানিস্তানের সম্মানসূচক নাগরিকত্ব পান।

নানগারহার প্রদেশের সরকারি পর্ষদের সদস্য সোহরাব কাদরি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, হামলার পরপরই বন্দুকধারী ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতারে পুলিশ একটি অভিযান শুরু করেছে। তিনি আরও জানান, তিনি ধারণা করছেন নাকামুরাকে তার কাজের জন্যই হামলার শিকার হয়ে প্রাণ দিতে হলো।

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির মুখপাত্র সাদিক সিদ্দিকী বলেছেন, ‘তিনি (ডা. নাকামুরা) তার আফগানিস্তানের মানুষের জীবের পরিবর্তনের জন্য উৎসর্গ করে গেছেন। আফগান সরকার দেশের মহৎ এক বন্ধুর ওপর জঘন্য এবং কাপুরুষোচিত এই হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।’

Afgan-2আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির সঙ্গে ডা. তিশতু নাকামুরা

সোহরাব কাদরি বলেন, ‘আফগানিস্তানকে পুনর্গঠনে অসামান্য কাজ করে গেছেন ডা. নাকামুরা। বিশেষ করে সেচ ও কৃষিখাতের জন্য।’ তবে এখনো কোনো গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। এদিকে আফগান তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, তাদের কোনো সদস্য ওই হামলার সঙ্গে জড়িত ছিল না।

এসএ/এমকেএইচ