হংকংয়ের পর্যটক কমেছে ১৪.২ শতাংশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:০৭ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২০

বিক্ষোভে উত্তাল চীনের আধা স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হংকংয়ে ২০১৯ সালে উল্লেখযোগ্যভাবে পর্যটকের সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে। গত বছর দেশটিতে মোট পর্যটকের সংখ্যা ছিল ৫৫ দশমিক ৯ মিলিয়ন, যা আগের বছরের তুলনায় ১৪ দশমিক ২ শতাংশ কম। হংকং ট্যুরিজম বোর্ড (এইচকেটিবি) বুধবার এই তথ্য দিয়েছে।

এইচকেটিবির দেয়া হিসাব অনুযায়ী, ২০১৯ সালের প্রথমার্ধে হংকংয়ে পর্যটকের সংখ্যা ১৩ দশমিক ৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেলেও জুলাই থেকে তা আশঙ্কাজনক হারে হ্রাস পেতে থাকে। বছরের দ্বিতীয়ার্ধে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করলে হংকংয়ের পর্যটকের সংখ্যা হ্রাস পায় ৩৯ দশমিক ১ শতাংশ।

২০১৯ সালে হংকংয়ে সবদিক থেকে দর্শনার্থীর সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে। চীনের মূল ভূখন্ড ও স্বল্প দূরত্বে থাকা দেশগুলো থেকে আসা পর্যটকদের সংখ্যা গত বছরের চেয়ে যথাক্রমে রেকর্ড ১৪.২ শতাংশ এবং ১৮.৭ শতাংশ হারে কমেছে। এছাড়া দূরের দেশ ও নতুন তৈরি হওয়া বাজার থেকে পর্যটক কমেছে যথাক্রমে ১২.৭ ও ১৩.৫ শতাংশ হারে।

Hong-Kong-2

গত বছর হংকংয়ে রাতারাতি দর্শনার্থীর সংখ্য ১৮ দশমিক ৮ শতাংশ কমে ২৩ দশমিক ৭৬ মিলিয়নে দাঁড়িয়েছে। এইচকেটিবির চেয়ারম্যান ওয়াই কে পাং বলেন, ‘বিগত বছরে হংকংয়ের পর্যটন শিল্প ব্যাতিক্রমী চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয়েছে কিন্তু বিশ্বমানের পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে প্রাণোচ্ছলতা ও আবেদন সম্পর্কে আমার দীর্ঘ বিশ্বাস রয়েছে।

চেয়ারম্যান ওয়াই কে পাং বলেন, ‘হংকং ট্যুরিজম বোর্ড স্বল্প দূরত্বের দেশগুলো থেকে আসা পর্যটক যেমন ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, দক্ষিণ কোরিয়া ও থাইল্যান্ডের জন্য ইতোমধ্যে বিভিন্ন প্রচারাভিযান শুরু করেছে। আমরা শিগগিরই জাপানসহ দূরের দেশ থেকে আসা পর্যটকের বাজার ধরতে প্রচারণা শুরু করবো।

তিনি আরও জানান, ‘এদিকে বিশ্ব পর্যটন বাজারে আমাদের পর্যটন শিল্পের বাজারের অবস্থার উন্নয়নে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি, যা আমাদের পর্যটন শিল্পকে তার আগের জায়গায় ফিরে যেতে সাহায্য করবে।’ এছাড়া এইচকেটিবি এই কৌশলের অংশ হিসেবে ‘হংকং ইজ অন’ নামে একটি ক্যাম্পেইন শুরু করেছে।

এসএ/এমকেএইচ