ম্যাকডোনাল্ড’স-এর পিৎজায় রড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফাস্টফুড কোম্পানি ম্যাকডোনাল্ড’স-এর পিৎজায় ধাতব একটি রড পাওয়া গেছে। এক নারী তার ভাতিজিকে সেই পিৎজা খেতে দিয়েছিলেন। কিন্তু শেষে পিৎজাটি খেতে গিয়ে তার নিজেরই দাঁত ভাঙার উপক্রম হয়েছিল। ঘটনাটি ঘটেছে অস্ট্রেলিয়ার সিডনি শহরে।

ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইলের অনলাইন প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘটনার শিকার ওই নারীর নাম আডা তিউপা। গত শুক্রবার পশ্চিম সিডনির কার্টরাইটসে ম্যাকডোনাল্ড’স এর আউটলেট থেকে তিনি একটি চিকেন অ্যান্ড চিজ বার্গার কেনেন। কিন্তু তা খেতে গিয়েই বাধে বিপত্তি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রডসহ বার্গারটির ছবি পোস্ট করে তিনি লিখেছেন, ‘দেখুন, আমি চিকেন অ্যান্ড চিজ বার্গারে কি পেয়েছি! এটা খেতে গিয়ে আমার দাঁত প্রায় ভাঙতে বসেছিল। আমার ভাইয়ের মেয়েও বার্গার অর্ডার করেছিল, কিন্তু ভাগ্য ভালো সেখানে কিছু পাওয়া যায়নি।’

কম বয়সী ওই নারী আরও বলেন, তিনি তার কেনা ওই বার্গারটি তার ভাতিজিকে খেতে দিতে চেয়েছিল কিন্তু তখন সে ক্ষুধার্থ না থাকায় খেতে চায়নি। তারপর তিনি খাওয়া শুরু করতেই ধাতব রডটি খুঁজে পান। কামড় দেওয়ার কারণে তার দাঁতে ব্যথা শুরু হয়ে যায়।

ঘটনার পর তিনি বার্গারটি নিয়ে ম্যাকডোনাল্ড’স-এর আউটলেটে যান। সেখানকার ব্যবস্থাপক তা দেখে কিছুটা দ্বিধার মধ্যে পড়েন। তারপর তিনি ওই নারীর কাছে এর জন্য ক্ষমা চেয়ে তাকে নতুন আরেকটি বার্গার দিয়ে পরিস্থিতির সামাল দেন বলে স্থানীয় গণমাধ্যমে জানানো হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই নারীর পোস্ট করা ছবিটি দেখে অনেকে বিস্ময় প্রকাশ করে এর সমালোচনা করেন। একজন লেখেন, ‘ভাগ্য ভালো আপনি এমন কিছু খুঁজে পেয়েছেন যা সহজে খেয়ে ফেলা যায় না।’ আরেকজন ম্যাকডোনাল্ড’স-এর এমন কাজে তীব্র নিন্দা জানান।

ম্যকডোনাল্ড’স-এর মুখপাত্রের সঙ্গে এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে এ ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে বলে তিনি ডেইলি মেইল অস্ট্রেলিয়াকে জানান। তিনি বলেন, ‘যা হয়েছে তার জন্য আমরা হতাশ। নিরাপদ খাদ্যপণ্য বিক্রিতে আমরা খুব সচেতন। এ ভুল অনিচ্ছাকৃত।’

এসএ/এমএস