ওয়াশিংটনে গান্ধীর মূর্তি ভাংচুর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:১৬ পিএম, ০৪ জুন ২০২০

হাতকড়া পরিহিত অবস্থায় শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তার হাতে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডে চলমান বিক্ষোভের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে ভারতীয় দূতাবাসের সামনে থাকা মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিতে ভাংচুর চালানো হয়েছে। বৃহস্পতিবারের এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই।

পিটিআইয়ের প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, গত ২ কিংবা ৩ জুন রাতে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিক্ষোভকারীরা এমন ঘটনা ঘটিয়েছে বলে সন্দেহ সংশ্লিষ্টদের। প্রসঙ্গত, ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রের বর্ণবৈষম্য বিরোধী টানা নবম দিনের এই বিক্ষোভ মাঝখানে সহিংস রূপ ধারণ করেছিল।

গান্ধীর মূর্তি ভাংচুরের এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ওয়াশিংটনে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাস। মার্কিন প্রশাসনকে বিষয়টি জানানোর পাশাপাশি এ বিষয়ে একটি মামলাও দায়ের করেছে দূতাবাস কর্তৃপক্ষ। পিটিআই জানাচ্ছে, ঘটনাটি নিয়ে ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

এদিকে গান্ধীর মূর্তি ভাংচুরের ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছে মার্কিন কর্তৃপক্ষ। ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কেনেথ জাস্টার এ প্রসঙ্গে টুইট করে বলেন,‌ ‘ওয়াশিংটনে মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিতে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা অত্যন্ত ন্যক্কারজনক। আমরা এর জন্য ক্ষমাপ্রার্থী।’

তিনি আরও বলেন, ‘জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যু নিয়ে দেশে বিক্ষোভ, ভাংচুর চলছে। আমরা বৈষম্যের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াব। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে পারবো।

এদিকে ভাংচুরের ঘটনার পর গান্ধীর মূর্তিটি আপাতত ঢেকে রাখা হয়েছে। ২০০০ সালে বিজেপিদলীয় তৎকালীন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ী মার্কিন সফরে গিয়ে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টনের উপস্থিতিতে এই মূর্তিটি উন্মোচন করেন।

এসএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]