হরিয়ানায় মেয়েরা গ্র্যাজুয়েশন করলেই মিলবে পাসপোর্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৩৭ এএম, ১৩ জুলাই ২০২০

একটা পাসপোর্ট হাতে পেতে কত না কাঠখড় পোহাতে হয়। জমা দিতে হয় ভুরি ভুরি কাগজপত্র। করতে হয় অফিসে অফিসে ধরনা। তারপরও এভাবে কয়েক মাস চলে গেলেও পেলে না পাসপোর্ট। তবে ভারতের একটি রাজ্যে পাসপোর্ট পেতে হলে শুধু একটা শর্ত পূরণ করতে হবে-আর তা হলো গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করা। তবে এখানে একটা কথা আছে-ছেলেরা কিন্তু পাবে না এই পাসপোর্ট। শুধু মেয়েদের জন্য এই সুযোগ করে দিয়েছে ওই রাজ্য।

ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, হরিয়ানায় মেয়েরা গ্র্যাজুয়েশন করলেই তারা পেয়ে যাবেন পাসপোর্ট। শনিবার এই ঘোষণা দেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টর। নারীর ক্ষমতায়ন বাড়াতে শনিবার এই অভিনব ঘোষণা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

শনিবার রাজ্যের মঙ্গলসিং অডিটোরিয়ামে ‘হর সর হেলমেট’ অর্থাৎ ‘প্রত্যেকের জন্য হেলমেট’ নামে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে একটি হেলমেট প্রস্তুতকারক সংস্থা। ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই পাসপোর্ট-সংক্রান্ত ঘোষণায় সকলকে চমকে দেন খট্টর। অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, ‘গ্র্যাজুয়েট হলেই ছাত্রীদের হাতে তাদের পাসপোর্ট তুলে দেয়া হবে।’ তিনি আরও বলেছেন, পাসপোর্ট তৈরির পুরো প্রক্রিয়াটাই কলেজ চত্বরের মধ্যে করা হবে। এজন্য কোথাও দৌড়াতে হবে না।

অনুষ্ঠানে আসা স্কুল, কলেজ ও আইটিআইয়ের পাঁচজন শিক্ষার্থীর হাতে হেলমেট ও লাইসেন্স তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। খট্টর বলেন, ‘যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে ট্র্যাফিক আইন সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে তার সরকার নানা ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। এজন্য রাজ্যের সব কলেজ শিক্ষার্থীদের ট্র্যাফিক আইন সম্পর্কে সচেতন করার প্রক্রিয়া চালু হয়েছে। আগামী দিনে শুধুমাত্র কলেজগুলো থেকেই শিক্ষার্থীরা যাতে ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরি করাতে পারেন তার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।’

ভারতে যে কয়টি রাজ্য লিঙ্গ বৈষম্যে পিছিয়ে তারমধ্যে অন্যতম হরিয়ানা। উত্তর ভারতের এই রাজ্যে পুরুষের তুলনায় নারীর সংখ্যা অনেক কম। নারী স্বাধীনতা নিয়েও বারবার প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে হরিয়ানাকে। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, শিক্ষিত মেয়েদের হাতে পাসপোর্ট তুলে দিয়ে নারী ক্ষমতায়নে জোর দিতে চাইছে খট্টর প্রশাসন।

এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]