বোলসোনারোর মিত্রদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্লকের নির্দেশ আদালতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৪৬ এএম, ০২ আগস্ট ২০২০

ব্রাজিলের কট্টর ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট জায়ের বোলসোনারোর এক ডজন মিত্র-সমর্থকের অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেওয়ার জন্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। প্রেসিডেন্ট বোলসোনারোর ঘনিষ্ট এসব ব্যক্তি বিচারকদের বিরুদ্ধে ভুয়া সংবাদ ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত বলে জানাচ্ছে বিবিসি।

তবে ব্রাজিলের সুপ্রিম কোর্টের এমন নির্দেশকে বাকস্বাধীনতার জন্য হুমকি হিসেবে অভিহিত করে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুক জানিয়েছে, তারা আদালতের এই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করবে।

ফেসবুকের মতো প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে সামরিক অভ্যুত্থানের আহ্বান জানিয়ে কংগ্রেস ও সুপ্রিম কোর্ট অচল করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এর আগে গত মে মাসে দেশটির একজন বিচারক ১২টি অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দিতে ফেসবুক এবং ১৬টি অ্যাকাউন্ট বন্ধে টুইটার কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়।

বিশ্বব্যাপী অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করে না দেওয়ায় গত শুক্রবার ব্রাজিলের সুপ্রিম কোর্ট ফেসবুককে ৩ লাখ ৬৮ হাজার ডলার জরিমানা করে। ফেসবুক শুধু ব্রাজিলে এসব অ্যাকাউন্টের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়ার ব্যাপারে রাজি হয়। এই নির্দেশের পর ফেসবুক অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ না করলে দৈনিক ১ লাখ রিয়াল জরিমানা দিতে হবে।

তবে আদালতের নির্দেশে অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে না দেওয়ার একই অভিযোগে টুইটার কর্তৃপক্ষকেও জরিমানা করা হয়েছে কিনা এ ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি। ফেসবুক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আদালতের চরম এই নির্দেশ বিশ্বজুড়ে আইন ও বিচার ব্যবস্থার সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

ফেসবুক বিবৃতিতে বলেছে, ‘স্থানীয় কর্মচারীর বিরুদ্ধে ফৌজদারী দায়বদ্ধতার হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বিশ্বব্যাপী অ্যাকাউন্টগুলো অবরুদ্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তটি মেনে চলা ছাড়া অন্য কোনও বিকল্প দেখতে পাচ্ছি না যদিও আমরা এ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করছি।’

যাদে অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেওয়া হয়েছে তাদের মধ্যে একজন হলেন ব্রাজিলের ক্ষমতাসীন দলের নেতা রবার্তো জেফারসন তিনি প্রেসিডেন্টের অনুগত হিসেবে পরিচিত। এছাড়া লুসিয়ানা হাং নামের দেশটির নামকরা এক ব্যাবসায়ীও রয়েছেন। প্রসঙ্গত, ভুয়া তথ্য ও ঘৃণা ছড়ানো ঠেকাতে ফেসবুক ও টুইটারের ওপর চাপ বাড়ছেই।

এসএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]