২য় দফায় বৈরুতে মেডিকেল সরঞ্জাম পাঠিয়েছে ইতালি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১৩ পিএম, ০৬ আগস্ট ২০২০

বৈরুতে দ্বিতীয় দফায় বৈরুতে মেডিকেল সরঞ্জাম পাঠিয়েছে ইতালি। ভয়াবহ বিস্ফোরণে বিপর্যস্ত লেবাননে এর আগেও ইতালি থেকে মানবিক সহায়তা পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বৈরুতের বন্দরের পাশের একটি গুদাম ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে। এতে শতাধিক নিহত এবং আরও পাঁচ হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়েছে। ধ্বংসস্তূপের নিচে আরও বহু মানুষ আটকা পড়ে থাকতে পারেন বলে দেশটির কর্মকর্তারা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

বৈরুতের বন্দরের কাছে একটি গুদামে অবৈধভাবে মজুত করে রাখা ২ হাজার ৭০০ টনের অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট থেকে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে এখন পর্যন্ত লেবাননের সরকার ধারণা করছে। তবে ওই বিস্ফোরণের পেছনে স্পষ্ট কারণ এখনও অজানাই রয়ে গেছে।

এদিকে, ইতালি ছাড়াও বিপর্যস্ত বৈরুতের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ইরান, কাতার, কুয়েত, ইরাক, ফ্রান্স-সহ বিভিন্ন দেশ। অনেকেই এর মধ্যেই খাদ্য, মেডিকেল সরঞ্জাম পাঠিয়েছে আবার কোনো কোনো দেশ সহায়তা পাঠানোর আশ্বাস দিয়েছে।

ইতালি থেকে দ্বিতীয় দফায় সাড়ে ৮ টন মেডিকেল সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে। ইতালির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, লেবানন সরকারের অনুরোধে বৃহস্পতিবার সকালে মেডিকেল সরঞ্জাম বহনকারী দ্বিতীয় বিমানটি ব্রিনদিসি থেকে বৈরুতের উদ্দেশে ছেড়ে গেছে।

ওই ফ্লাইটে সার্জিক্যাল এবং ট্রমা কিট পাঠানো হয়েছে। এর আগের ফ্লাইটে দমকল বাহিনী, কেমিক্যাল বিশেষজ্ঞ, চিকিৎসকদের একটি দলকে বৈরুতে পাঠানো হয়।

ইতালি ছাড়াও বৈরুতে প্রথম ধাপে দুই হাজার প্যাকেট খাবারের পাশাপাশি ওষুধ ও চিকিৎসা সামগ্রী পাঠিয়েছে ইরান। বৈরুতে একটি ভ্রাম্যমাণ হাসপাতালও প্রতিষ্ঠা করবে তেহরান। সেখানে ২২ সদস্যের একটি চিকিৎসক দল পাঠানো হয়েছে। বুধবার বিকেলে ওই চিকিৎসক দলটি বিমানযোগে বৈরুতে পৌঁছায়।

এছাড়া ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ উদ্ধারকারী দল ও মানবিক সহায়তা নিয়ে বৈরুতে পৌঁছেছেন। এদিকে, বিস্ফোরণের পরপরই বেশকিছু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারী ইসরায়েল হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করছেন। বিস্ফোরণের আগে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর একটি টুইট ঘিরে এই জল্পনা আরও জোরালো হয়েছে।

মঙ্গলবার ইসরায়েলের রামলি শহরে দেশটির সেনাবাহিনীর একটি ঘাঁটি পরিদর্শনের পরপর এক টুইট বার্তায় সতর্ক করে দিয়ে নেতানিয়াহু বলেন, আমরা আস্তানায় আঘাত করি এবং এখন প্রেরণাদানকারীদের আঘাত করছি। আত্মরক্ষার জন্য আমরা প্রয়োজনীয় সবকিছুই করবো। আমি হিজবুল্লাহসহ তাদের সবাইকে বিষয়টি বিবেচনার পরামর্শ দিচ্ছি।

টিটিএন

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]