সৌদির বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা চায় ইইউ পার্লামেন্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৫৯ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

ইয়েমেন যুদ্ধ এবং প্রখ্যাত সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার কারণে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে সদস্য দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সংসদ ইউরোপীয়ান পার্লামেন্ট (ইপি)। বৃহস্পতিবার ইইউ অস্ত্র রফতানি প্রতিবেদন গ্রহণের পর এমন আহ্বান জানানো হলো।

রফতানি সংক্রান্ত ওই প্রতিবেদনে গ্রহণ করে বৃহস্পতিবার ইইউ পার্লামেন্টের আইনপ্রণেতারা জোটের সকল সদস্যদের প্রতি জার্মানি, ফিনল্যান্ড এবং ডেনমার্কের পথ অনুসরণ করার আহ্বান জানান। জামাল খাশোগি হত্যকাণ্ডের পর এসব দেশ সৌদি আরবের কাছে অস্ত্র বিক্রির ক্ষেত্রে কিছু বিধিনিষেধ জারি করে।

ইইউ নথিতে দেখা যাচ্ছে, তারা সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ ইয়েমেন যুদ্ধে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটভুক্ত দেশগুলোর কাছে যে অস্ত্র বিক্রি করেছে তা ব্যবহার করা হয়েছে ইয়েমেন যুদ্ধে; যুদ্ধকবলিত সৌদি সীমান্ত লাগোয়া ওই দেশটির দুই কোটি ২০ লাখ মানুষের এখন মানবিক সহায়তা ও সুরক্ষা প্রয়োজন।

ইইউ পার্লামেন্ট গৃহীত ওই প্রতিবেদনে ইয়েমেনে এই সংঘাত যাতে আর চলতে না পারে এর জন্য উল্লিখিত দেশগুলোর মতো ইইউভুক্ত অপর দেশগুলোকেও একই নিষেধাজ্ঞা জারির আহ্বান জানানো হয়েছে।

২০১৮ সালের অক্টোবরে মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টের কলাম লেখক তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটে ঢোকার পর নির্মমভাবে খুন হন। সৌদি আরব থেকে একটি কিলিং স্কোয়াড গিয়ে সেখানে তাকে হত্যার পর টুকরো টুকরো তার মরদেহ নিশ্চিহ্ন করে ফেলে। হত্যায় অভিযুক্ত স্বয়ং যুবরাজ সালমান।

এদিকে ক্ষমতাচ্যুত নিজেদের পছন্দের শাসককে ফের ক্ষমতায় বসাতে ২০১৫ সাল থেকে ইয়েমেনে সামরিক অভিযান শুরু করে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট। ইরান সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীরা রাজধানী সানা দখল করে নিলে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট মানসুর হাদি পালিয়ে গিয়ে সৌদি আরবে আশয় নেন।

দুই পক্ষের এই যুদ্ধ-সংঘাতে ইয়েমেনের হাজার হাজার সাধারণ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। বিশ্বের সবচেয়ে মর্মান্তিক মানবিক সংকট তৈরি হয়েছে সেখানে। দেশটির প্রায় ৪০ লাখ মানুষ বাড়িঘর ছাড়া। এ ছাড়া ১৫ লাখের বেশি মানুষ মানবিক সহায়তায় দেয়া খাবারের ওপর বেঁচে থেকে মানবেতর জীবন ধারণ করছেন।

এসএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]