চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধে মার্কিন প্রচেষ্টা আটকে দিলেন বিচারক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪০ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

চীনা মেসেজিং ও লেনদেনের অ্যাপ ‘উইচ্যাট’ নিষিদ্ধে মার্কিন সরকারের নেয়া পদক্ষেপ আটকে দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের একজন আইনজীবী।

উইচ্যাটের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ বেআইনি আখ্যা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাজিস্ট্রেট বিচারক লরেল বিলার বলেছেন, বাক-স্বাধীনতার নিশ্চয়তা দেয়া সংবিধানের প্রথম সংশোধনীর সঙ্গে এই নিষেধাজ্ঞা সাংঘর্ষিক। চীনা অ্যাপ উইচ্যাটের ওপর প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞায় বেশ কিছু প্রশ্ন উঠেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে নিজেদের কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে মার্কিন প্রতিষ্ঠান ওরাকল এবং ওয়ালমার্টের সঙ্গে টিকটক এক চুক্তিতে পৌঁছানোর পর আদালতের ওই নির্দেশ এলো।

জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকির কথা উল্লেখ করে গত মাসে চীনা মেসেজিং অ্যাপ উইচ্যাটের মালিক প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট হোল্ডিংস লিমিটেড এবং ক্ষুদ্র ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটকের মালিক বাইট ড্যান্সের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর ফলে
এসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে লেনদেনও নিষিদ্ধ হয়।

রোববার মার্কিন অ্যাপ স্টোর থেকে উইচ্যাট সরিয়ে ফেলার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য দফতর। মেসেজিং এই অ্যাপ ব্যবহার করে আর্থিক লেনদেনও করা যায়।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ব্যবহারকারীদের ডেটা এই মেসেজিং অ্যাপের মাধ্যমে চীনে পাচার হতে পারে বলে অভিযোগ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। তবে চীন সরকার এবং উইচ্যাট কর্তৃপক্ষ এই অভিযোগ দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞাকে অনাকাঙ্ক্ষিত বলে মন্তব্য করেছে উইচ্যাটের মালিক প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট।

যুক্তরাষ্ট্রে উইচ্যাট ব্যবহারকারীদের বেশ কিছু গোষ্ঠী মেসেজিং অ্যাপটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিরোধিতা করে আদালতের দ্বারস্থ হয়। সরকারি এই সিদ্ধান্তের চ্যালেঞ্জ জানিয়ে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা।

শুনানিতে সানফ্রান্সিসকোর আদালতের বিচারক বিলার বলেন, জাতীয নিরাপত্তার জন্য হুমকি হিসেবে চীনের প্রযুক্তি এবং মোবাইল প্রযুক্তির সংশ্লিষ্টতার ব্যাপারে সাধারণ তথ্য-প্রমাণ মিলেছে। কিন্তু উইচ্যাটের ক্ষেত্রে এখনও নির্দিষ্ট কোনও তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স

এসআইএস/এমএসএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]