আমাকে বিষপ্রয়োগের ঘটনায় পুতিন জড়িত : রাশিয়ার বিরোধী নেতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:০৩ পিএম, ০১ অক্টোবর ২০২০

রাশিয়ার বিরোধীদলীয় নেতা ও অ্যাক্টিভিস্ট আলেক্সেই নাভালনি বলেছেন, তাকে বিষপ্রয়োগের জন্য প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমিরি পুতিন জড়িত বলে মনে করেন তিনি। জার্মানির এক সংবাদমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাতকারে নাভালনি বলেন, ‘আমি ধারণা করছি, এই ঘটনার সঙ্গে পুতিন জড়িত। এ ছাড়া আমি আর কোনো ব্যাখ্যা দেখছি না।’

বিষপ্রয়োগের শিকার হওয়ার পর নাভালনি এখনও জার্মানিতে চিকিৎসাধীন। সেখানেই ডের স্পাইজেল নামের একটি সংবাদ সাময়ীকীকে দেয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, নভিচক নামের একটি বিষাক্ত রাসায়নিক তার দেহে প্রয়োগ করা হয়। ফ্রান্স ও সুইডেনের গবেষণাগারে এ সংক্রান্ত সত্যতার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

তবে বিরোধীনেতা আলেক্সেই নাভালনিকে বিষপ্রয়োগের ঘটনায় কোনোভাবেই জড়িত নেই বলে দাবি করেছে ক্রেমলিন। নাভালনির ওই সাক্ষাতকারের পর পুতিনের মুখপাত্র বলেছেন, নাভলানিকে বিষপ্রয়োগ করা হয়নি। উল্টো নাভালনির হয়ে মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিআইএ) কাজ করছে বলে অভিযোগ তোলেন তিনি।

সাইবেরিয়া থেকে বিমানে করে রাজধানী মস্কো যাওয়ার পথে গত ২০ আগস্ট আলেক্সেই নাভালনির শরীরে বিষেপ্রয়োগ করা হয়। এরপর জরুরি বিমান অবতর করে তাকে ভর্তি করা হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে। এর দুইদিন পর উন্নত চিকিৎসার জন্য জার্মানির রাজধানী বার্লিনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

অসুস্থ হওয়ার পর আজ বৃহস্পতিবার তিনি প্রথমবারের মতো কোনো সংবাদমাধ্যমে কথা বললেন। নাভালনি সেখানে বলেন, তার দেহে বিষপ্রয়োগের নির্দেশ এসেছে রাশিয়ার তিনটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানদের কাছ থেকে। আর এই তিন গোয়েন্দা সংস্থা প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে ও তার অধীনে কাজ করে।

বিবিসির বৃহস্পতিবারের এক অনলাইন প্রতিবেদন অনুযায়ী ডার স্পাইজেলকে পুতিন প্রশাসনের কট্টর সমালোচক হিসেবে পরিচিত ৪৪ বছর বয়সী নেতা আলেক্সেই নাভালনি বলেন, ‘নোভিচক ব্যবহারের এখতিয়ার যদি এই তিনজনের হাতে না থেকে ৩০ জন মানুষের হাতে থাকে তাহলে তো তা গোটা বিশ্বের জন্যই হুমকি।’

নাভালনির সমর্থকরা প্রথমদিকে মনে করেছিলেন টমস্ক বিমানবন্দরে চায়ের মাধ্যমে তাদের নেতাকে বিষপ্রয়োগ করা হয়। কিন্তু পরে পাওয়া যায় অন্য তথ্য। নাভালনি ওই ঘটনার আগের দিন যে হোটেলে রাত্রিযাপন করেছিলেন সেই হোটেল কক্ষে থাকা পানির বোতলে বিষাক্ত রাসায়নিক নোভিচকের উপস্থিতি শনাক্ত হয়।

বিষপ্রয়োগের ঘটনা নিয়ে নাভালনি বলেন, ‘আপনার কোনো কষ্ট হবে না এমনকি আপনি কোনো যন্ত্রণাও বোধ করবেন না কিন্তু আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনি মারা যাচ্ছেন।’ তবে রাশিয়ায় ফিরে যেতে তিনি ভয় পান না এবং প্রচারাভিযান আবার শুরু করতে রাশিয়ায় ফিরবেন বলেও জানিয়েছেন নাভালনি।

এসএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]