তুরস্ককে হুমকি দিয়ে গ্রিসের পাশে জার্মানি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৩৫ পিএম, ১৪ অক্টোবর ২০২০

পূর্ব ভূমধ্যসাগর নিয়ে চলমান উত্তেজনা নিয়ে তুরস্ককে সতর্ক করে দিলেন জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস। তিনি বলেছেন, তুরস্ক যেন তেল ও গ্যাস অনুসন্ধান বিতর্কে উসকানি না দেয়। মাস বলেছেন, তুরস্ক সরকার বারবার বলছে, তারা আলোচনা চায়। তা হলে তারা উসকানি দেয়া বন্ধ করুক। খবর ডয়েচে ভেলের।

ডয়েচে ভেলের প্রতিবেদন অনুযায়ী গ্রিস ও সাইপ্রাস সফরের আগে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস বলেছেন, ‘আমরা তুরস্কের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, তারা যেন একতরফা ব্যবস্থা নিয়ে গ্রিসের সঙ্গে আলোচনা বন্ধ না করে।’ তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, ‘জার্মানি পুরোপুরি গ্রিস ও সাইপ্রাসের সঙ্গে আছে, তুরস্কের সঙ্গে নয়।’

মাস সে জন্যই গ্রিস ও সাইপ্রাস যাচ্ছেন, কিন্তু তুরস্কে যাচ্ছেন না। তিনি বলেছেন, ‘আমি এই বিরোধের পরিপ্রেক্ষিতেই সাইপ্রাস ও গ্রিস যাচ্ছি। আলোচনার পরিস্থিতি তৈরির দায় তুরস্কের বলে মনে করে জার্মানি।’

জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের মুখপাত্র জানিয়েছেন, তুরস্ক যে আবার অনুসন্ধানকারী জাহাজ পাঠিয়েছে, তা খুবই অবিবেচক সিদ্ধান্ত। উত্তেজনা কমাবার যে চেষ্টা চলছে, তা এর ফলে ধাক্কা খাবে।

সম্প্রতি উত্তেজনা শুরুর পর তুরস্ক তাদের অনুসন্ধানকারী জাহাজ ফিরিয়ে আনলেও গত সোমবার ফের দেশটি পূর্ব ভূমধ্যসাগরের বিতর্কিত এলাকায় তেল ও গ্যাস অনুসন্ধানকারী জাহাজ পাঠিয়েছে। এ নিয়ে ইউরোপের দেশগুলো দেখা দিয়েছে। এর আগে তুরস্ককে নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়েছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তুরস্ককে সতর্ক করে দিয়ে এবার মাস বললেন, ‘তুরস্ক যেন এমন কোনো কাজ না করে, যাতে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ে। সে ক্ষেত্রে ইইউ’র সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্ক আরও খারাপ হবে।’

তুরস্ক পূর্ব ভূমধ্যসাগরে আবার অনুসন্ধানকারী জাহাজ পাঠানোর পর সে দেশের জ্বালানিমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমরা অনুসন্ধানের কাজ করব। আমাদের অধিকার রক্ষার জন্যই এই কাজ করতে হবে।’

তুরস্কের এই পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ গ্রিস জানিয়েছে, ‘তুরস্ক পরিকল্পনামাফিক এই এলাকার শান্তি ও নিরাপত্তা বিঘ্নিত করছে। তুরস্ক যেন অবিলম্বে জাহাজ নিজেদের দেশে ফিরিয়ে নেয়। কারণ, তারা বেআইনি কাজ করছে। এর থেকে বোঝা যাচ্ছে, তুরস্ক আলোচনা চালাতে ইচ্ছুক নয়।’

এসএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]