করোনার পর অর্থনীতিতে যুক্তরাষ্ট্রকে টপকাতে পারে চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:১৪ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২০

মহামারিতে ধুঁকছে বিশ্ব অর্থনীতি। অধিকাংশ দেশের জিডিপি (মোট দেশজ উৎপাদন) প্রবৃদ্ধি ঋণাত্মক কিংবা সংকুচিত। করোনা সংকট কাটিয়ে বিশ্ব অর্থনীতিতে চীনের প্রভাব আরও বাড়বে। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ অর্থনীতির দেশ চীন টপকাতে পারে যুক্তরাষ্ট্রকেও। এমন পূর্বাভাস আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল আইএমএফের।

আইমএমএফের পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০২১ সালে বিশ্ব অর্থনীতিতে চীনের অবদান বেড়ে হবে ২৬.৮ শতাংশ। ২০২৫ সালে তা বেড়ে হতে পারে ২৭.৭ শতাংশ। ফলে বিশ্ব অর্থনীতিতে দেশভিত্তিক অবদানের নিরিখে যুক্তরাষ্ট্রকে টপকে শীর্ষে উঠে যাবে চীন। আগামী বছর শীর্ষ পাঁচে থাকবে ভারত, জার্মানি ও ইন্দোনেশিয়া।

করোনায় গোটা বিশ্বে অর্থনৈতিক সংকট দেখা দিলেও অনেকটা প্রভাবমুক্ত চীন। সংক্রমণ ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল উহানে দমিয়ে রাখতে সমর্থ চীন সরকার দেশকে করোনামুক্ত ঘোষণা করেছে কয়েক মাস আগেই। অথচ বিশ্বে প্রকোপ চলছে। এ পার্থক্যই চীনকে প্রবৃদ্ধিতে এগিয়ে রাখবে বলে মত অর্থনীতিবিদদের।

এই পরিস্থিতিতেই বিশ্ব অর্থনীতির আগামী রূপরেখা কেমন হতে পারে, তার একটা আগাম চিত্র তুলে ধরেছে আইএমএফ। বর্তমানে ক্রয়ক্ষমতার নিরিখে বিশ্ব অর্থনীতিতে যুক্তরাষ্ট্রের অবদান সবচেয়ে বেশি— ২৩ শতাংশেরও বেশি। সেখানে চীনের অবদান ১৫ দশমিক ৫ শতাংশের মতো।

২০২৫ সালের যে অর্থনৈতিক চিত্র আইএমএফ প্রকাশ করেছে, সেই তথ্য নিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ২০২৫ সালে চীনের সেই অবদান বেড়ে হতে পারে ২৭.৭ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্রের তা কমে ১০.৪ শতাংশে নামতে পারে। ১৩ শতাংশ অবদান নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকতে পারে ভারত।

আইএমএফ এর আগের পূর্বাভাসে জানিয়েছিল, চলতি অর্থবছর বিশ্ব অর্থনীতির সংকোচন হতে পারে ৪.৯ শতাংশ। কিন্তু সাম্প্রতিক পূর্বাভাসে এই সংকোচন কিছুটা কমে ৪.৪ শতাংশ হতে পারে বলে জানানো হয়েছে। সংস্থাটি বলছে, আগামী অর্থবছর কোভিড-পরবর্তী বিশ্বের প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৫.২ শতাংশ।

পূর্বাভাসে বলা হচ্ছে, আগামী বছর চীনের অর্থনীতির আকার ৮ দশমিক ২ শতাংশ বাড়বে। এপ্রিলে ৯ দশমিক ২ শতাংশের কথা বলা হয়েছিল। এটাও বিশ্ব অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির এক-চতুর্থাংশ। এ ছাড়া আগামী বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি হবে ৩ দশমিক ১ শতাংশ; যা হবে বিশ্ব অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির ১১ দশমিক ৬ শতাংশ।

এসএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]