চীনা সিনোফার্মের তৈরি ভ্যাকসিন নিরাপদ : ল্যানসেট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:০৪ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২০

চীনের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ওষুধ কোম্পানি সিনোফার্মের তৈরি মহামারি কোভিড-১৯ এর সম্ভাব্য ভ্যাকসিন নিরাপদ এবং রোগীদের দেহে অ্যান্টিবডি তৈরিতে সক্ষম। প্রখ্যাত ব্রিটিশ চিকিৎসাবিষয়ক জার্নাল দ্য ল্যানসেট ইনফেকশাস ডিজিজেসে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক জনস্বাস্থ্য ও চিকিৎসাবিষয়ক সাময়িকী দ্য ল্যানসেট–এর প্রকাশনা হলো দ্য ল্যানসেট ইনফেকশাস ডিজিজেস জার্নাল। বৃহস্পতিবার বিখ্যাত এই সাময়িকীটি এ গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

গবেষণার আওতায় ১৮ থেকে ৮০ বছর বয়সীদের এই ভ্যাকসিন দেয়া হয়। ভ্যাকসিন গ্রহণকারীর সবার শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। তবে ষাটোর্ধ্বদের শরীরে ভ্যাকসিনের প্রতিক্রিয়া খুব ধীর।

ল্যানসেটের ওই গবেষণা প্রতিবেদন অনুযায়ী ভ্যাকসিন গ্রহণকারী ১৮ থেকে ৫৯ বছর বয়সীদের শরীরে অ্যান্টিবডি ২৮ দিনের মধ্যে তৈরি হচ্ছে। কিন্তু এর চেয়ে বেশি বয়সীদের ৪২ দিন পর্যন্ত সময় লেগে যাচেছ।

তবে এ গবেষণায় ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতার উল্লেখ না থাকায় এটি সার্স কোভিড-২ থেকে লোকজনকে রক্ষা করতে সক্ষম কিনা তা বলা যাচেছ না।

ল্যানসেট বলছে, বর্তমানে করোনার সম্ভাব্য ৪২টি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। এর একেকটি একেক ধরনের। এর মধ্যে কয়েকটি ইতোমধ্যে নিরাপদ ও প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম বিবেচিত হয়েছে।

গবেষণার অন্যতম লেখক এবং বেইজিং ইনস্টিটিউট অব বায়োলজিক্যাল প্রডাক্টস এর অধ্যাপক ইয়াং শাওমিং বলেন, ‘আমাদের গবেষণায় দেখা গেছে কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে ব্যাপকভাবে অ্যান্টিবডি তৈরিতে ভ্যাকসিনের অতিরিক্ত ডোজ দরকার; যা সুরক্ষার জন্যও গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে।’

এসএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]