তিন সপ্তাহের মধ্যে নতুন সরকার গঠনের প্রতিশ্রুতি জেসিন্ডার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:২৯ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২০

বিপুল ভোট পেয়ে দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস গড়েছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডার্ন। তিন সপ্তাহের মধ্যে নতুন সরকার গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। তবে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া তার দল এককভাবে সরকার গঠন করবে নাকি জোট হবে এ নিয়ে তিনি এখনই কিছু বলতে রাজি নন।

রয়টার্স জানাচ্ছে, শনিবার মধ্যপন্থী বামদল লেবার পার্টিকে অর্ধ শতাব্দীর মধ্যে সবচেয়ে বড় বিজয় উপহার দিয়েছেন জেসিন্ডা। নির্বাচনে তার দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ায় ১৯৯৬ সালে নিউজিল্যান্ড আনুপাতিক ভোটদান পদ্ধতি চালু হওয়ার পর দেশটির প্রথম কোনো দল এককভাবে সরকার গঠনের সুযোগ পেয়েছে।

সেপ্টেম্বরে হওয়ার কথা থাকলেও করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ায় নির্বাচন এক মাস পিছিয়ে দেয়া হয়। এদিকে দক্ষতার সঙ্গে করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবেলায় নেতৃত্ব দেয়া প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডার্নই যে দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় বসতে যাচ্ছেন, নির্বাচনের আগে হওয়া সব জনমত জরিপ এমন ইঙ্গিতই পাওয়া যায়।

ঐতিহাসিক জয়ের পর এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বে করোনা মোকাবিলায় সবচেয়ে সফল নেতা জেসিন্ডা বলেন, ‘চূড়ান্ত ফল পেতে আরও তিন সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হবে। আমার প্রত্যাশা, আমরা এই সময়সীমার মধ্যেই নতুন সরকার গঠনের বিষয়ে কাজ করবো। জোট নিয়ে আমি এখনই কোনো উপসংহার টানতে চাই না।’

নিউজিল্যান্ডের এককক্ষ বিশিষ্ট সংসদের ১২০ আসনের মধ্যে এবারের নির্বাচনে জেসিন্ডার দল লেবার পার্টি জয় পেয়েছে ৬৪টিতে। সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন ৬১ আসন। গত ৫০ বছরে সবচেয়ে বড় জয় পাওয়া লেবার পার্টি চাইলে এককভাবে সরকার গঠন করতে পারবে। কিন্তু জোট গঠন দেশটিতে রীতিতে পরিণত হয়েছে।

গত তিন বছর ধরে জেসিন্ডা জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী। তার জোট সরকারে লেবার পার্টি ছাড়াও শরিক ছিল গ্রিন পার্টি এবং জাতীয়তাবাদী নিউজিল্যান্ড ফার্স্ট পার্টি। জেসিন্ডা বলেন, ‘আমি হলাম ঐকমত্য নির্মাতা কিন্তু লেবার পার্টি থেকে আমাকে যে ম্যান্ডেট দেয়া হয়েছে তা নিয়েও আমার কাজ করা দরকার।’

জেসিন্ডা বলেন, ‘আমি গ্রিন পার্টিকে বলেছি, আগামী সপ্তাহে তাদের সঙ্গে আলোচনা করবো। আমি এই মুহূর্তে কোনো উপসংহারে পৌঁছাতে চাই না।’

এসএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]