নতুন বিপদে অ্যামাজন-ফ্লিপকার্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৩৭ এএম, ১৯ অক্টোবর ২০২০

নিয়ম না মানায় দুই অনলাইনভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফ্লিপকার্ট (Flipkart) এবং অ্যামাজনকে (Amazon) নোটিশ পাঠিয়েছে ভারত।

উৎসবের মৌসুমে দুই সংস্থা যে বিশেষ ছাড়ের আয়োজন করেছে, সেখানে বিক্রিত পণ্যগুলোতে কোন দেশে তৈরি হয়েছে, তা লেখা নেই। গত ১৫ অক্টোবর দুই সংস্থাকে নোটিস পাঠানোর পাশাপাশি আগামী ১৫ দিনের মধ্যে জবাব দিতেও দেশটির সরকার।

করোনা আবহে ‘‌আত্মনির্ভর ভারত’‌ তৈরির ডাক দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে স্বদেশী জিনিসপত্রের কেনার ওপর আরও বেশি জোর দিতে বলেছিলেন দেশবাসীকে।

তার ওপর নির্দেশ দেয়া হয়েছিল, এবার থেকে কোনো পণ্য বিক্রি করতে গেলে, সেটি কোন দেশে উৎপাদন করা হয়েছে, তার উল্লেখ করতে হবে।

অভিযোগ আছে, ফ্লিপকার্ট এবং অ্যামাজন তাদের উৎসব উপলক্ষে আয়োজিত বিশেষ ছাড়ের ইভেন্টে এ নিয়ম মানছে না। কোনো পণ্যের গায়েই ওই তথ্য দেয়া নেই। এরপরই নড়চড়ে বসে কেন্দ্র। নোটিশ পাঠিয়ে ১৫ দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলেছে। নাহলে ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারিও দেয়া হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর মতে, অ্যামাজনের তুলনায় বেশি বিপাকে পড়েছে ফ্লিপকার্ট। কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রক বোর্ডের নিয়মভঙ্গ করা হোক কিংবা বিচ্ছিন্নতাবাদে মদত দেয়া, গত কয়েকদিনে একাধিক অভিযোগ উঠেছে এ ই–কমার্স সংস্থার বিরুদ্ধে।

কয়েকদিন আগেই নাগাল্যান্ডের রাজধানী কোহিমার এক গ্রাহকের পরিষেবা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তরে ফ্লিপকার্ট জানিয়েছিল, ওই রাজ্য দেশের বাইরে। তাই সেখানে পরিষেবা দেয়া হয় না। সংস্থার এই জবাবে শুরু হয় তুমুল বিতর্ক।

ভারতে ব্যবসা করে দেশেরই একটি অঙ্গরাজ্যকে নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির এমন বক্তব্যে সরব হন নাগাল্যান্ডের ডিজি থেকে শুরু করে ত্রিপুরার রাজবংশের বর্তমান বংশধর প্রদ্যোৎ বিক্রম মাণিক্য দেববর্মা। হাজার হাজার নেটিজেনদের রোষের মুখেও পড়তে হয় সংস্থাটিকে।

ভারতের মতো বিশাল বাজারে ব্যবসা করছে ই-কমার্স সাইট। তাদের ভারতের ইতিহাস-ভুগোল সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান থাকা উচিৎ। নাগাল্যান্ডকে ভারতের বাইরে বলে ফ্লিপকার্ট যে ভুল করেছে তার কোনো ক্ষমা নেই বলেও মন্তব্য করেছেন অনেকে। বিপদ বুঝে পরিস্থিতি সামাল দিতে ক্ষমা চায় ফ্লিপকার্ট। এই ভুলের জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করে সংস্থাটি।

উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলোতে যাতে পরিষেবা দেয়া যায়, তা চেষ্টা করারও আশ্বাস দেয়া হয় প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে। সেইসঙ্গে নাগাল্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত হতে পারলে খুব খুশি হবে ফ্লিপকার্ট বলে জানায় সংস্থাটি। যদিও তাতে বিশেষ লাভ হয়নি।

এফআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]