দেশকে সমস্যায় রেখে পদত্যাগ করতে পারি না : থাই প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৫ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২০

কয়েক মাস ধরে চলে আসা রাজতন্ত্রের সংস্কার ও প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি গড়ে ওঠা আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে থাইল্যান্ডের পার্লামেন্টে দুই দিনের বিশেষ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই অধিবেশনে অংশ নিয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান ও-চা বিরোধীদের পদত্যাগের দাবি প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, তিনি পদত্যাগ করবেন না।

মঙ্গলবার দেশটির পার্লামেন্টে প্রায়ূত চান বলেন, আমি সমস্যা ছেড়ে পালিয়ে যাব না। দেশে যখন সমস্যা দেখা দিয়েছে সেই সময় পদত্যাগ করে আমার দায়িত্বপালন ছেড়ে দেব না। থাইল্যান্ডের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষের সব সদস্যই দেশটির সামরিক বাহিনীর মনোনীত; প্রায়ূত চানও দেশটির সাবেক সেনাশাসক।

jagonews24

থাইল্যান্ডের রাজতন্ত্র, সংবিধানের সংস্কার ও কারচুপির মাধ্যমে নির্বাচিত হওয়ার অভিযোগ এনে প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূতের পদত্যাগের দাবিতে গত জুলাইয়ের মাঝামাঝি সময় থেকে দেশটিতে বিরোধীরা বিক্ষোভ করে আসছেন। এই বিক্ষোভ চলতি মাসে ব্যাপক আকার ধারণ করায় তা নিয়ন্ত্রণে জরুরি অবস্থাও জারি করা হয়।

তবে দেশটির রাজা মহা ভাজিরালংকর্নের প্রাসাদ এখন পর্যন্ত এই বিক্ষোভের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও মন্তব্য করেনি।

থাইল্যান্ডের সংবিধানে দেশটির রাজপরিবারের সদস্যদের অপমান, অবমাননা কিংবা সমালোচনা করে কোনও মন্তব্য করলে সেজন্য কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে। কিন্তু দেশটির গণতন্ত্রকামীরা বর্তমানে সংবিধানে সংশোধন এনে বাক-স্বাধীনতার দাবি তুলেছেন।

jagonews24

প্রায়ুত চান ও-চা বিক্ষোভকারীদের সমাবেশকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে তা নিয়ন্ত্রণে আনা দরকার বলে মন্তব্য করেছেন। এই থাই প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যদিও সংবিধানে জনগণের প্রতিবাদ করার স্বাধীনতা দেয়া আছে, তারপরও কর্তৃপক্ষের অবৈধ প্রতিবাদ নিয়ন্ত্রণ করা দরকার।

কিছু বিক্ষোভকারী অনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা দেশে সংঘর্ষ কিংবা দাঙ্গা চাই না।

সূত্র : ব্লুমবার্গ, আলজাজিরা।

এসআইএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]