মুসলিমদের ক্ষোভের মধ্যেও ফ্রান্সের পাশে ভারতীয়রা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪৮ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২০

মহানবী (স)-কে অপমান এবং ইসলাম ধর্ম নিয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমান্যুয়েল ম্যাক্রোঁর কটূক্তির জেরে ক্ষোভের আগুন জ্বলছে মুসলিম বিশ্বে। ফরাসি পণ্য বয়কটের দাবি উঠেছে তুরস্ক, বাংলাদেশ, পাকিস্তানসহ আরবের বেশিরভাগ দেশে। প্রায় প্রতিদিনই এ নিয়ে চলছে বিক্ষোভ-সমাবেশ।

তবে এতকিছুর মধ্যেও ফ্রান্সের পাশে দাঁড়াচ্ছেন ভারতীয়রা। তাদের মতে, ঠিক কাজটাই করেছেন ম্যাক্রোঁ। অনেকের দৃষ্টিতেই ফরাসি প্রেসিডেন্ট এখন ‘হিরো’।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, গত সোম ও মঙ্গলবার ভারতের টুইটারে শীর্ষ ট্রেন্ডিং হ্যাশট্যাগ ছিল ‘আই স্ট্যান্ড উইথ ফ্রান্স’ ও ‘উই স্ট্যান্ড উইথ ফ্রান্স’। এই হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে গত দু’দিনে হাজার হাজার ভারতীয় ফ্রান্সের প্রতি সংহতি জানিয়েছেন।

চলতি মাসের শুরুর দিকে মুসলিমদের ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী’ এবং ‘ইসলাম বিশ্বব্যাপী সংকটাপন্ন এক ধর্ম’ মন্তব্য করে বিতর্ক উসকে দেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ। এর কিছুদিন পর ক্লাসরুমে মহানবী (স)-এর বিতর্কিত ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের পর এক শিক্ষকের শিরশ্ছেদ করেন এক মুসলিম যুবক।

india-1.jpg

এ ঘটনার জেরে ম্যাক্রোঁ দৃঢ় ঘোষণা দেন, তার দেশ মহানবী (স)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন বন্ধ করবে না। পরে দেশটির দু’টি সরকারি ভবনে প্রজেক্টরের মাধ্যমে বড় করে সেই বিতর্কিত ছবি দেখানো হয়।

এরপরই ক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়ে গোটা মুসলিম বিশ্বে। প্রিয়নবীকে অপমানের জবাবে শুরু হয় তুমুল বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ। দেশে দেশ ছড়িয়ে পড়ে ফ্রান্স বয়কটের ডাক। এমনকি, ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের দাবিও উঠেছে অনেক জায়গায়।

শুধু মুসলিম বিশ্বেই নয়, ধর্মীয় সহিংসতা উসকে দেয়ায় ম্যাক্রোঁর সমালোচনা করছেন অনেক পশ্চিমা দেশের মানুষেরাও।

তবে এসবের ভিড়ে ব্যতিক্রম এশিয়ার হিন্দুপ্রধান দেশ ভারত। তারা এখনও ফরাসি নেতাকেই সমর্থন করছে।

পরবেশ সাহিব সিং নামে বিজেপির এক সংসদ সদস্য টুইটারে বলেছেন, সহনশীলতাও ধর্মনিরপেক্ষ হওয়া উচিত। আমি ফ্রান্সের পাশে রয়েছি। খুব ভালো করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট।

এছাড়া ভারতীয় টুইটারে ট্রেন্ডিং হয়ে ওঠা বাকি হ্যাশট্যাগের মধ্যে রয়েছে ‘ওয়েলডান ম্যাক্রোঁ’ এবং ‘ম্যাক্রোঁ দ্যা হিরো’।

অবশ্য ভারতীয়দের সঙ্গে ফ্রান্সের সুসম্পর্ক নতুন কিছু নয়। ২০১৬ সালে সই হওয়া ৯৪০ বিলিয়ন ডলারের একটি বিতর্কিত চুক্তির প্রথম ধাপে চলতি বছরের শুরুর দিকে ফ্রান্সের কাছ থেকে পাঁচটি রাফায়েল যুদ্ধবিমান পেয়েছে ভারত।

কেএএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]