শার্লি এবদোতে এরদোয়ানের কার্টুন, আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে তুরস্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:০৯ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২০

ফ্রান্সের সাপ্তাহিক শার্লি এবদোতে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদেয়ানকে নিয়ে আপত্তিকর কার্টুন প্রকাশিত হওয়ার পর এর বিরুদ্ধে কূটনৈতিক ও আইনি পদক্ষেপ নেয়ার স্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক। কার্টুনটিতে দেখা যাচ্ছে, বোরকা পরিহিত এক নারীর পোশাক তুলে তাকে উলঙ্গ করছেন তুর্কি নেতা ‘এরদোয়ান’।

বিবিসির বুধবারের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী তুরস্কের রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম জানিয়েছে যে, তুর্কি প্রসিকিউটররা ফ্রান্সের এই ব্যঙ্গাত্মক ম্যাগাজিনটিকে নিয়ে সরকারিভাবে তদন্ত শুরু করেছেন। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সাম্প্রতিক ইসলামবিরোধী কঠোর অবস্থানের পর থেকেই তুরস্ক ও ফ্রান্সের মধ্যে উত্তেজনা চলছে।

বুধবার সাপ্তাহিক ম্যাগাজিনটির সবশেষ সংখ্যার প্রচ্ছদে এরদোয়ানের ওই কার্টুনটি ছাপা হয়। তুরস্কের কর্মকর্তারা এ ব্যাঙ্গচিত্রকে শার্লি এবদোর ‘সাংস্কৃতিক বর্ণবাদ ও বিদ্বেষ ছড়ানোর জঘন্য প্রচেষ্টা’ হিসেবে অভিহিত করেছেন। প্রকাশিত ব্যাঙ্গচিত্রে এরদোয়ানকে সাদা টি-শার্ট ও অন্তর্বাস পরে বসে থাকতে দেখা গেছে।

নবী মোহাম্মদ (সাঃ) ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশ করার পর থেকে এমানুয়েল ম্যক্রোঁর মুসলিমবিরোধী অবস্থান নিয়ে চলমান উত্তেজনার মধ্যে এরদোয়ানের এই ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশ করা হয়। বাক স্বাধীনতা নিয়ে শ্রেণিকক্ষে মোহাম্মদ (সাঃ) ব্যাঙ্গচিত্র দেখানোয় চলতি মাসেই ফ্রান্সে এক শিক্ষককে গলা কেটে হত্যার পর থেকে এই উত্তেজনা।

শিক্ষককে গলা কেটে হত্যার পর ধর্মনিরপেক্ষ ফ্রান্স গড়ার কথা জানিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ মুসলিবিরোধী অবস্থান নিয়ে নানা মন্তব্য করতে শুরু করলে এর এরদোয়ান এর প্রতিবাদ করে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের জন্য দেশের নাগরিকদের আহ্বান জানান। তিনি ম্যাক্রোঁকে মানসিক চিকিৎসা নেয়ার পরামর্শও দেন।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী তুর্কি প্রেসিডেন্টের যোগাযোগ পরিচালক ফাহেরেটিন আলটুন বলেছেন, ‘শার্লি এবদো সবেমাত্র আমাদের প্রেসিডেন্টকে নিয়ে বেশ কিছু ঘৃণ্য চিত্রপূর্ণ তথাকথিত কার্টুন প্রকাশ করেছে। আমরা এই প্রকাশনাটির সাংস্কৃতিক বর্ণবাদ ও বিদ্বেষ ছড়ানোর এই ঘৃণ্য অপচেষ্টার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’

তুর্কি ভাইস প্রেসিডেন্ট ফুয়াত ওকটে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি ‘এই অপমানের’ বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘আপনি চিন্তার স্বাধীনতার কথা বলে আপনি কাউকে বোকা বানাতে পারবেন না।’ দেশটির অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় সরকারি কর্তাব্যক্তিরাও এর নিন্দা জানিয়েছেন।

এসএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]