যুক্তরাষ্ট্রে আগাম ভোটে ৮ কোটির রেকর্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৪৪ এএম, ৩০ অক্টোবর ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এ বছর আগাম ভোট পড়ছে রেকর্ড পরিমাণে। ইতোমধ্যেই দেশটিতে আট কোটির বেশি ভোটার গোপন ব্যালটে ভোট দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ফ্লোরিডার এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবর রয়টার্সের।

বলা হচ্ছে, চলতি বছর যে হারে আগাম ভোট পড়ছে তাতে গত এক শতাব্দীর রেকর্ড ভেঙে যেতে পারে।

২০১৬ সালের তুলনায় এবারের নির্বাচনে ইতোমধ্যেই ৫৮ শতাংশ বেশি আগাম ভোট পড়েছে। বিপুল সংখ্যক লোক ডাকডোগে বা স্বশরীরে পোলিং সাইটে গিয়ে ভোট দিচ্ছেন।

আগামী ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মূল ভোটগ্রহণ। তবে সেদিন ভিড়ের কারণে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যেতে পারে শঙ্কা থেকে অনেকেই আগাম ভোটে আগ্রহ দেখাচ্ছেন।

এছাড়া, এবারের নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন এবং রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়েও মানুষের মধ্যে তীব্র আগ্রহ দেখা যাচ্ছে।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ২০১৬ সালের নির্বাচনে মোট ১৩ কোটি ৮০ লাখ ভোট পড়ার রেকর্ড এ বছর সহজেই ভেঙে যাবে। গতবার নির্বাচনী দিনের আগে মাত্র ৪ কোটি ৭০ লাখ আগাম ভোট পড়েছিল।

election-2.jpg

এবার বেশিরভাগ জরিপেই ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন জো বাইডেন। করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় ট্রাম্প প্রশাসনের ঘাড়ে ব্যর্থতার দায় চাপাচ্ছেন অনেকে। নির্বাচনের দিন ঘনিয়ে আসার সময়েই দেশটিতে আবারও রেকর্ডভাঙা গতিতে বাড়ছে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের সংক্রমণ। ফলে ভোটারদের মধ্যে এর প্রভাব পড়বে বলে ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ডাকযোগের ভোটে ডেমোক্র্যাট শিবির বেশি আগ্রহী হওয়ায় আগাম ভোটে তারাই বেশ সুবিধা পেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঐতিহাসিকভাবে রিপাবলিকানরাও আগাম ভোট দিলেও এবারের নির্বাচনে ডাকযোগের ভোট নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প বারবার সমালোচনা এবং আক্রমণ করায় সেই সংখ্যা কমতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের ২০টি অঙ্গরাজ্যের দলীয় নিবন্ধনের তথ্য থেকে দেখা যায়, ইতোমধ্যেই ১ কোটি ৮২ লাখ নিবন্ধিত ডেমোক্র্যাট সমর্থক ভোট দিয়েছেন। রিপাবলিকানরা ভোট দিয়েছেন ১ কোটি ১৫ লাখ এবং নির্দলীয় ভোটার ভোট দিয়েছেন অন্তত ৮৮ লাখ।

কেএএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]