কাশ্মীরে সন্ত্রাসী হামলায় তিন বিজেপি কর্মী নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:০৪ পিএম, ৩০ অক্টোবর ২০২০

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের কুলগাম জেলায় বৃহস্পতিবার রাতে এক সন্ত্রাসী হামলায় ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) ৩ কর্মী নিহত হয়েছেন। দলের নিহত ওই তিন কর্মীকে উদীয়মান তরুণ নেতা হিসেবে অভিহিত করে হামলার নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। খবর এনডিটিভির।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত ৮টা নাগাদ কুলগামের ওয়াইকে পোরা এলাকার ওই হামলায় বিজেপির স্থানীয় যুব সংগঠন যুব মোর্চার জেলা সাধারণ সম্পাদক ফিদা হুসেন ইতু, জেলা কর্মসমিতির সদস্য উমর রশিদ বেগ এবং স্থানীয় নেতা উমর রমজান হজাম নিহত হন। তারা তিন জনেই ওয়াইকে পোরা এলাকার বাসিন্দা।

স্থানীয় সূত্রের বরাতে আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, হামলার সময় বিজেপির ওই তিন যুব নেতা একটি গাড়িতে যাচ্ছিলেন। জঙ্গিরা তাদের গাড়ি লক্ষ্য করে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল থেকে গুলি ছোড়ে। স্থানীয় গ্রামবাসীরা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরে চিকিৎসকেরা তিন জনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় এক পুলিশ কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘আমরা রাত ৮টা ২০ মিনিট নাগাদ স্থানীয় সূত্রে হামলার খবর পেয়েই দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছাই।’ এর পর শুক্রবার সকালে কুলগামের জেলা পুলিশ সুপারসহ উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। এলাকা জুড়ে শুরু হয় পুলিশের টহলদারি।

প্রধানমন্ত্রী মোদি টুইট বার্তায় বলেন, ‘আমাদের তিন উদীয়মান তরুণ নেতার খুনের নিন্দা জানাচ্ছি। তারা জম্মু ও কাশ্মীরের জন্য অসাধারণ কাজ করছিলেন। এই শোকের সময়ে তাদের পরিবারকে সমবেদনা জানাচ্ছি। নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করছি।’ কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহও এ খুনের নিন্দা করেন।

দ্য রেজিস্টেন্স ফ্রন্ট (টিআরএফ) এই হামলার দায় স্বীকার করছে। এনডিটিভি বলছে, টিআরএফ লস্কর-ই-তৈয়বার ছত্রছায়ায় থেকে কার্যক্রম পরিচালনা করে। কাশ্মীরে গত কয়েক মাস ধরেই বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা হচ্ছে। জুলাইয়ে সন্ত্রাসীদের হামলায় বিজেপি নেতা শেখ ওয়াসিম, তার বাবা ও ভাই নিহত হয়েছিল।

এসএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]