ভুয়া ভিডিও ছড়িয়ে ধরা ট্রাম্পপুত্র!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৫৫ পিএম, ০৬ নভেম্বর ২০২০

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোট গণনা প্রায় শেষ পর্যায়ে। ভোটের ফল নিয়ে উদ্বিগ্নতার শেষ নেই বিশ্বজুড়ে। এই নির্বাচনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ এনেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রয়োজনে আইনী লড়াইয়ের কথাও জানিয়েছেন তিনি। পিছিয়ে নেই তার ছেলে এরিক ট্রাম্পও। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) ব্যালট পেপার পোড়ানোর একটি ভিডিও প্রকাশ করেন ট্রাম্পপুত্র। এ অভিযোগ তার টুইটার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

তবে মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএনএর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এরিকের শেয়ার করা ওই ভিডিও ভুয়া। সেখানে দেখা যাচ্ছিল, ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে সিল দেয়া ৮০টি ব্যালট পেপার পোড়ানো হচ্ছে ভার্জিনিয়া সমুদ্র সৈকতে।

তবে ভার্জিনিয়ার স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এরিকের এমন দাবিকে নাকচ করে দিয়েছে।

ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল, ব্যালটের মতো কাগজ দিয়ে ভর্তি একটি প্লাস্টিক ব্যাগে দাহ্য তরল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছেন এক ব্যক্তি। ভিডিওতে ওই ব্যক্তির মুখ দেখা যায়নি। তবে বলতে শোনা গেছে, ব্যাগটিতে ছিল ৮০টি ব্যালট। যেগুলোর প্রত্যেকটিই ছিল ট্রাম্পের পক্ষে সিল দেয়া। যদিও ভিডিওতে ঘটনাস্থলের নাম উল্লেখ করা হয়নি। তবে কাগজগুলোর ওপরের খোসা থেকে জায়গাটি ভার্জিনিয়া বলে ধারণা করা হয়েছিল।

যাই হোক, শেষ পর্যন্ত ওই ব্যালটগুলো নকল বলে প্রমাণিত হয়েছে। ভার্জিনিয়া বিচ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কাগজগুলো কোনোভাবেই আসল ব্যালট নয়। সেগুলোতে কোনো বারকোড ছিল না।

ভার্জিনিয়া বিচের ডেপুটি রেজিস্ট্রার ক্রিস্টিনে লুইস বলেন, অসত্য তথ্য ছড়িয়ে পড়া রোধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয় তার অফিস।

স্থানীয় সিটি কমিউনিকেশন ডিরেক্টর জুলিয়ে হিল জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস।

এদিকে, মঙ্গলবারই বিষয়টি ভুয়া হিসেবে সাব্যস্ত হওয়ার পরেও ভিডিওটির ছড়িয়ে পড়া রোধ করা যায়নি। যুক্তরাষ্ট্রের ডানপন্থী গণমাধ্যমগুলোও ভিডিওটি নিজেদের মতো করে শেয়ার করতে শুরু করে।

এরিক ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার হওয়া ভিডিওটিই দেখা হয়েছে ১২ লাখেরও বেশি বার। অন্য তিনটি উল্লেখযোগ্য অ্যাকাউন্ট থেকে সম্মিলিতভাবে দেখা হয়েছে ১ লাখ ১৫ হাজারের মতো।

ইতোমধ্যে এরিক ট্রাম্প যে অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওটি শেয়ার করেছিলেন সেটিকে বন্ধ করে দিয়েছে টুইটার।

এসএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]