ফ্রান্সে পুলিশি বর্বরতার প্রতিবাদে বিক্ষোভে সহিংসতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫০ এএম, ২৯ নভেম্বর ২০২০

ফ্রান্সে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের ‘সম্মান রক্ষার’ অজুহাতে ভিডিওধারণ নিষিদ্ধ করার প্রস্তাবিত আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নেমেছেন হাজার হাজার মানুষ। এর সঙ্গে যোগ হযেছে পুলিশি বর্বরতার প্রতিবাদও। শনিবার দেশটির রাজধানী প্যারিসে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে পুলিশের।

গত শুক্রবার এক কৃষ্ণাঙ্গ সঙ্গীত প্রযোজককে নির্দয় মারধর এবং বর্ণবাদী আচরণের কারণে আটক করা হয় চার ফরাসি পুলিশ কর্মকর্তাকে। সম্প্রতি লুপসাইডার নামে একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, ওই পুলিশ কর্মকর্তারা মাইকেল জেকলার নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ সঙ্গীত প্রযোজককে কয়েক মিনিট ধরে মারধর করছেন এবং বারবার বর্ণবাদী গালি দিচ্ছেন।

এ ঘটনার ভিডিও ধরা পড়ে সিসি ক্যামেরা এবং প্রতিবেশীদের মোবাইল ফোনে। পরে সেসব ভিডিও ভাইরাল হতেই ফুঁসে ওঠে সাধারণ জনতা। এর প্রতিবাদ জানান জনপ্রিয় ফুটবলার কিলিয়ান এমবাপ্পে, আন্তোনি গ্রিজম্যান, সঙ্গীত তারকা আয়া নাকামুরাসহ আরও অনেকে।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমান্যুয়েল ম্যাক্রোঁ প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজে পুলিশি বর্বরতাকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ এবং ‘সবার জন্য লজ্জাজনক’ বলে মন্তব্য করেন।

France-2

তবে ম্যাক্রোঁ সরকারই কিছুদিন আগে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের যেকোনও কর্মকাণ্ডের ছবি ও ভিডিওধারণ নিষিদ্ধ করে একটি আইন পাসের প্রস্তাব দিয়েছে। অর্থাৎ, কেউ পুলিশ সদস্যদের বিতর্কিত কর্মকাণ্ড ভিডিও করে প্রচার করলে নিজেই বিপদে পড়তে পারেন।

নাগরিক অধিকার সংগঠনগুলো ফরাসি সরকারের এ সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। তাদের আশঙ্কা, এই আইন পাস হলে পুলিশি বর্বরতার ঘটনাগুলো প্রকাশ্যে আসার পথ বন্ধ হয়ে যাবে।

ক্ষুব্ধ জনতা ম্যাক্রোঁ সরকারের এ নীতির প্রতিবাদে আগেই বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিল। জেকলারকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর তাতে আরও বেশি সাড়া পড়ে যায়।

শনিবার প্রায় গোটা ফ্রান্সজুড়েই পুলিশি বর্বরতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়েছে। অনেক জায়গায় এ বিক্ষোভ সহিংসতায় রূপ নেয়।

France-2

স্কাই নিউজের সাংবাদিক মিশেল ক্লিফোর্ড বলেন, রাস্তায় খুবই রাগান্বিত অবস্থা। ফ্লাশ বোমা নিক্ষেপ করা হচ্ছে।

তিনি জানান, প্যারিস পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ওপর বলপ্রয়োগ করছে। বিক্ষোভের মধ্যে একের পর এক কাঁদানে গ্যাস ছোড়া হচ্ছে। অনেক ভবনে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতেও বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশ বাহিনীকে চড়াও হতে দেখা গেছে।

ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড ডারমানিন জানিয়েছে, শনিবার বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে দেশটিতে অন্তত ৩৭ জন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।

তবে এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়েছে কি না তা জানা যায়নি।

সূত্র: স্কাই নিউজ

কেএএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]