যৌন হেনস্তার জেরে বেধড়ক পিটুনি খেলেন বিজেপি নেতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৩৭ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০২১

যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলে সাবেক বিজেপি বিধায়ক মায়াশংকর পাঠককে বেধড়ক পিটিয়েছেন এক ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা। ওই ছাত্রী যে কলেজে পড়াশোনা করেন বিজেপির সাবেক এই বিধায়ক সেই কলেজের চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন।

ভারতের উত্তরপ্রদেশের বারাণসী জেলার বাগাতুয়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনের খবরে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাবেক বিজেপি বিধায়ক মায়াশংকর পাঠকের বালুয়া পাহাদিয়া গ্রামে একটি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ রয়েছে। কয়েকদিন আগে ওই কলেজের এক ছাত্রীকে তিনি যৌন হেনস্তা করেন বলে অভিযোগ ওঠে। এর জেরে মেয়েটির পরিবারের সদস্য ও কয়েকজন প্রতিবেশী এসে ওই সাবেক বিধায়ককে বেধড়ক মারধর করেন।

পরে এই ঘটনার ভিডিও প্রকাশ হলে এলাকায় শোরগোল পড়ে যায়। সেই ভিডিওতে দেখা যায়, একটি চেয়ার বসে কান ধরে রয়েছেন মায়াশংকর।

ভিডিওর জেরে তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, মেয়েটির যৌন হেনস্তার বিষয়ে এখনো স্থানীয় থানায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। পাশাপাশি মারধরের ঘটনায় সাবেক এই বিজেপি বিধায়কও পুলিশের দ্বারস্থ হননি। তাই স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে ভিডিও ফুটেজ দেখে মারধরের ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছে প্রশাসন।

তবে এ প্রসঙ্গে অভিযুক্ত বিজেপি বিধায়ক মায়াশংকর পাঠকের উল্টো অভিযোগ, কলেজের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার জন্য ওই ছাত্রীটি তার কাছে অনুমতি চাইতে এসেছিলেন। কিন্তু, উচ্চারণে সমস্যা হওয়ায় তাকে তিনি বকাঝকা করেন। আর অনুষ্ঠানের দিন তাকে বক্তব্য রাখতে দেয়া হবে না বলেও জানিয়ে দেন।

এর জেরে আচমকা আটদিন পরে ওই ছাত্রী তার পরিবারের সদস্যসহ কয়েকজন প্রতিবেশীকে নিয়ে এসে মায়াশংকরের ওপর চড়াও হন। যৌন হেনস্তার মিথ্যা অভিযোগ এনে তাকে বেধড়ক মারধর করেন।

সাবেক এই বিধায়ক বলেন, ‘যদি কোনো শিক্ষার্থীকে বকাঝকা করা অন্যায় হয়, তাহলে আমি ক্ষমা চাইছি। কিন্তু, রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে আমার যে বদনাম করার চেষ্টা হচ্ছে তার তীব্র নিন্দা করছি।’

এমআরআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]