চীনে খনিতে আটকে পড়া শ্রমিকদের উদ্ধারে আরো ২ সপ্তাহ লাগবে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:১০ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২১

স্বর্ণখনিতে হাজার মিটার গভীরে আটকে পড়া শ্রমিকদের উদ্ধারে আরো দুই সপ্তাহের বেশি সময় লাগবে বলে জানিয়েছে চীনের উদ্ধারকারী দল। খবর বিবিসির।

গত ১০ জানুয়ারি চীনের শ্যানডং প্রদেশের হুশান স্বর্ণখনিতে একটি বিস্ফোরণের ফলে ২২ জন শ্রমিক আটকা পড়েন। কর্তৃপক্ষ জানায়, এই দুর্ঘটনার এক সপ্তাহ পর তারা ১১ জন শ্রমিকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছেন। তবে এদের মধ্যে একজন পরবর্তীকালে মারা যান।

আটকে পড়া বাকি ১১ জনের অবস্থা সম্পর্কে কর্তৃপক্ষ এখনো কিছু জানতে পারেনি। খনির অন্যান্য অংশে খাবার ও বার্তা আরও নিচে পৌঁছানোর পরেও তাদের সঙ্গে এখন পর্যন্ত কোনো যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

উদ্ধারকারীরা শ্রমিকদের কাছে খাদ্য ও ওষুধ সরবরাহের জন্য ছোট ছোট ছিদ্র করেছেন। যে বিস্ফোরণের ফলে খনির প্রবেশপথ বন্ধ হয়ে গিয়েছে তার কারণ এখনো অস্পষ্ট।

বেঁচে যাওয়া শ্রমিকরা উদ্ধারকারীদের জানান, তাদের অবস্থানের আরও একশ মিটার গভীরে একজন শ্রমিকের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করতে পেরেছিলেন। কিন্তু পরে তার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

বিস্ফোরণের পর এক সপ্তাহ পর্যন্ত কোনো জীবিতের খোঁজ পাওয়া যায়নি। উদ্ধারকারীরা খনির ছিদ্র দিয়ে যে দড়ি ফেলেছিলেন সেখানে এক সপ্তাহ পর গত রবিবার তারা টান অনুভব করেন। এরপর সেই দড়ির মাধ্যমে জীবিত শ্রমিকরা একটি কাগজের নোট পাঠান। এতে জানা যায় ১২ জন জীবিত আছেন যাদের ১১ জন একটি জায়গায় ও একজন আরও নিচের একটি জায়গায় আটকা পড়েছেন।

১২তম শ্রমিকের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পর বাকি ১১ জনের মধ্যে মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত একজন কোমায় চলে যান যিনি বৃহস্পতিবার মারা গিয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

বর্তমানে যোগাযোগ রয়েছে এমন ১০ জন ৬শ মিটার (দুই হাজার ফুট) গভীরে অন্ধকারে আটকা পড়ে আছেন। এদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা সম্ভব হচ্ছে। একটি ছোট ছিদ্রের মাধ্যমে তাদের কাছে খাদ্য ও ওষুধ পাঠানো হচ্ছে।

এমকে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]