প্রজাতন্ত্র দিবসে ভারতে কৃষকদের লাঠিপেটা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৪৯ পিএম, ২৬ জানুয়ারি ২০২১

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে কৃষক আন্দোলনে পুলিশ টিয়ার গ্যাস ছুড়েছে এবং লাঠি-চার্জ করেছে। মঙ্গলবার ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে সকাল থেকেই কৃষকরা জড়ো হতে থাকেন। ট্রাক্টর নিয়ে বিক্ষোভে অংশ নেন কৃষকরা ওই কর্মসূচির আগে দিল্লির সিংঘু সীমানায় পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার অভিযোগ উঠেছে বিক্ষোভরত কৃষকদের বিরুদ্ধে।

পরিস্থিতি সামলাতে টিয়ার গ্যাস ছুড়েছে পুলিশ। কেন্দ্রের তিন বিতর্কিত কৃষি আইনের প্রতিবাদে মঙ্গলবার দিল্লিতে ট্রাক্টর র্যালির ডাক দিয়েছেন কৃষকরা। অনেক টালবাহানার পর শেষমেশ কৃষকদের র্যালির অনুমতি দিয়েছে দিল্লি পুলিশ।

অপরদিকে কৃষক আন্দোলনকে ব্যবহার করার জন্য পাকিস্তান উঠে পড়ে লেগেছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে দিল্লি পুলিশ। রোববার কৃষকদের ট্রাক্টর মিছিলে অনুমতি দেওয়া যায় কিনা তা নিয়ে বৈঠকে বসে দিল্লি পুলিশ। কৃষকদের ট্রাক্টর মিছিলকে কেন্দ্র করে বিশৃঙ্খলা ঘটানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, গোয়েন্দা সূত্রে খবর রয়েছে পাকিস্তান থেকে ৩শ'র বেশি টুইটার হ্যান্ডল খোলা হয়েছে শুধুমাত্র ভারতে প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে বিশৃঙ্খলা তৈরির জন্য। জানুয়ারির ১৩ থেকে ১৮ তারিখের মধ্যে ওই অ্যাকাউন্টগুলো খোলা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। দিল্লি পুলিশের বিশেষ কমিশনার দীপক পাঠক বলেন, বিশৃঙ্খলা তৈরির জন্য বহু অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। কৃষকরা যেন সতর্ক থাকেন।

দিল্লি পুলিশ ট্রাক্টর মিছিলের অনুমতি দিলেও অভিযোগ উঠছে, ঘুরপথে মিছিল আটকানোর চেষ্টা শুরু করেছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয়েছে, আন্দোলনরত কৃষকদের ডিজেল না দেওয়ার জন্য রাজ্যের সাপ্লাই অফিসারদের উদ্দেশে যোগী সরকার একটি নির্দেশিকা জারি করেছে।

প্রসঙ্গত, তিন কৃষি আইনের প্রতিবাদে দিল্লি সীমানা লাগোয়া এলাকায় আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন দেশের কৃষকরা। এর আগে ১০ বার কৃষক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসে সরকার পক্ষ। কিন্তু এখনও এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে ভারত বনধ পালন করছেন কৃষকরা। সেই সঙ্গে ৩২টি কৃষক ইউনিয়নের প্রধান অনশনে বসেন।

কৃষক আন্দোলনের মধ্যে বারবার তাদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কৃষকদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কৃষকদের স্বার্থেই সংস্কার করা হচ্ছে। নিজেদের পণ্য ভালো দামে ও সরাসরি বিক্রি করার স্বাধীনতা কৃষকদের দেয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।

টিটিএন/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]