এক বছরের বেশি সময় পর দেখা দিলেন কিমের স্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৫৭ এএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

এক বছরের বেশি সময় পর জনসম্মুখে দেখা গেল উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের স্ত্রী রি সোল জুকে। বুধবার সরকারি গণমাধ্যমে তার ছবি প্রকাশ হয়েছে। কিমের বাবা কিম জং ইলের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দেশজুড়ে বিশাল উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। এর মধ্যেই এক কনসার্টে স্বামীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন রি সোল। খবর রয়টার্সের।

রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম রোডং সিনমানে প্রকাশিত ছবিতে দেখা গেছে কিম এবং তার স্ত্রী কনসার্ট উপভোগ করছেন। দু'জনকেই হাসিখুশি দেখা গেছে।

দেশের বেশিরভাগ গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানেই কিমের সঙ্গে জনসম্মুখে উপস্থিত হতে দেখা যায় সোলকে। গত বছরের জানুয়ারিতে শেষ বারের মতো লুনার নিউ ইয়ারের উৎসবের সময় সোলকে দেখা গেলেও প্রায় এক বছরের বেশি সময় তাকে আর দেখা যায়নি। ফলে তার স্বাস্থ্য নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছিল এবং ধারণা করা হচ্ছিল যে তিনি হয়তো অন্তঃসত্ত্বা।

দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এনআইএস) মঙ্গলবার জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের ঝুঁকির কারণেই হয়তো সোল বাইরে চলাফেরা এবং লোকজনের সঙ্গে মেলামেশা কমিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি তার সন্তানদের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছিলেন।

এনআইএস বলছে, কিম এবং সোলের তিন সন্তান রয়েছে যদিও এ বিষয়ে বাইরের দুনিয়া খুব কমই জানে। এখন পর্যন্ত কিমের ব্যক্তিগত জীবন এবং তার পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে খুব কমই জানা সম্ভব হয়েছে।

উত্তর কোরিয়া এখন পর্যন্ত দাবি করে আসছে যে, দেশটিতে একজনও করোনায় আক্রান্ত হয়নি। কিন্তু এনআইএস বলছে, চীনের সঙ্গে সীমান্ত থাকা এবং দেশ দু'টির মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকায় দক্ষিণ কোরিয়ায় করোনা সংক্রমণ না ঘটা একেবারেই অসম্ভব।

গত বছরের শুরুতেই চীনের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দেয় উত্তর কোরিয়া। দেশটি বলছে, শুরু থেকেই চীনের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ, বাণিজ্যে নিষেধাজ্ঞা এবং কঠোর কোয়ারেন্টাইন মেনে চলার কারণে তাদের দেশে সংক্রমণ এখনও শূণ্য।

এদিকে, সম্প্রতি রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মানসুদা আর্ট থিয়েটারে উপস্থিত ছিলেন সোল। তবে ওই অনুষ্ঠানে কাউকে মাস্ক পরতে দেখা যায়নি। এমনকি সামাজিক দূরত্বও চোখে পড়েনি।

টিটিএন/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]