১০০ মাদরাসায় গীতা-রামায়ণ পড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:০৮ পিএম, ০৩ মার্চ ২০২১

ভারতের ১০০টি মাদরাসায় পড়ানো হবে ধর্মগ্রন্থ গীতা ও রামায়ণ। দেশটির ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ওপেন স্কুলিং’-এর অন্তর্গত মাদরাসাগুলোতে অন্তর্ভুক্ত হবে প্রাচীন ভারতীয় দর্শন এবং ঐতিহ্য নিয়ে পাঠ্যক্রম।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, কেন্দ্রের নতুন শিক্ষানীতি মেনেই এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ওপেন স্কুলিংয়ের চেয়ারম্যান সরোজ শর্মা জানিয়েছেন, আপাতত ১০০টি মাদরাসায় তৃতীয়, পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির পাঠ্যক্রমে থাকছে গীতা-রামায়ণ। ভবিষ্যতে ৫০০টি মাদরাসায় চালু হবে এই বিষয়ে পাঠদান। বর্তমানে ‘ভারতীয় জ্ঞান পরম্পরা’র ওপর ১৫টি কোর্স তৈরি করা হয়েছে। এতে বেদ, যোগ, বিজ্ঞান, রামায়ণ ও মহাভারতের মতো মহাকাব্যের বিষয়ে পাঠ থাকবে।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ওপেন স্কুলিং একটি স্বয়ংশাসিত প্রতিষ্ঠান। তবে এটি দেশটির শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত হয়। মঙ্গলবার (২ মার্চ) দেশটির রাজধানী নয়াদিল্লিতে এই পাঠ্যক্রম উন্মোচন করেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিওয়াল।

২০২০ সালের জুলাই মাসে প্রায় ৩৪ বছর পর বদল আসে ভারতের জাতীয় শিক্ষানীতিতে। দেশটির নতুন জাতীয় শিক্ষানীতিতে গুরুত্বহীন দশম বা দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা। এই পরীক্ষায় পড়ুয়াদের মুখস্ত বিদ্যার বদলে হাতেকলমে শিক্ষায় জোর দেয়া হবে। প্রতিবছরের বদলে তৃতীয়, পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে পরীক্ষা নেয়ার সুপারিশ করা হয়। দশম শ্রেণির পর কলা বিভাগ, বিজ্ঞান বিভাগ বা বাণিজ্য বিভাগের পার্থক্য উঠে যাচ্ছে।

এমএইচআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]