নাইজেরিয়ায় বন্দুকধারীদের হামলায় ৭ পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:১১ এএম, ০৯ মে ২০২১ | আপডেট: ০৫:২৫ পিএম, ০৯ মে ২০২১

নাইজেরিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে তেলসমৃদ্ধ একটি রাজ্যে বন্দুকধারীদের সিরিজ হামলায় অন্তত ৭ জন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। শুক্রবার রাতভর এসব হামলার ঘটনা ঘটে। তবে হামলায় দায়ীদের এখনও চিহ্নিত করতে পারেনি দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। খবর বিবিসির।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, সাম্প্রতি দেশটির তেলসমৃদ্ধ ওই এলাকায় বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলায় প্রাণহানির ঘটনা বাড়ছেই। একদিন আগেই বৃহস্পতিবার (৭ মে) বন্দুকধারীরা নিকটস্থ আনামব্রা রাজ্যের আরেকটি পুলিশ স্টেশনে হামলা চালিয়েছিল। এতে দুইজন কর্মকর্তা নিহত হন। তবে স্পষ্টভাবে হামলায় দায়ীদের চিহ্নিত করতে ব্যর্থ নাইজেরিয়ার নিরাপত্তা বাহিনী।

jagonews24.com

দেশটির পুলিশ বলছে, দক্ষিণাঞ্চলের রাজ্যের একটি চৌকিতে বন্দুকধারীরা হামলা চালায়। পরে তারা পুলিশ স্টেশনে গিয়ে কয়েকজন কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা করে। এসময় তারা নিরাপত্তা বাহিনীর গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

রাজ্য পুলিশের মুখপাত্র নামদি ওমনি জানিয়েছেন, অজ্ঞাত বন্দুকধারীরা টয়োটা হিলাক্স ভ্যাট চালিয়ে চোবা ব্রিজের কাছাকাছি আসে। তারা অতর্কিতভাবে সেখানকার নিরাপত্তা চৌকিতে গুলি ছুঁড়তে শুরু করে। এতে দুইজন কর্মকর্তা নিহত হন।

তিনি আরও জানান, স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে তারা পার্শ্ববর্তী রুমুজি পুলিশ স্টেশনে ঢুকে পড়ে। সেখানে এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়ে দু’জন কর্মকর্তাকে হত্যা করে। পরে তারা পুলিশের একটি টহল গাড়িতে হামলা চালা। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছুঁড়লে দুই বন্দুকধারী নিহত হয়। অন্যরা পালিয়ে কাছাকাছি অ্যালিম্ববু পুলিশ স্টেশনে হামলা করে আরও তিন কর্মকর্তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করে।

দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী এসব হামলার পেছনে নিষিদ্ধ বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্টী ও বিয়াফ্রার আদিবাসীদের হাত আছে বলে অভিযোগ তুলেছেন। দেশটির দক্ষিণ-পূর্ব এলাকায় বিয়াফ্রা স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। সেখানে তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতাও রয়েছে।

এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]