রকেটের ধ্বংসাবশেষ নিয়ে চীনকে নাসার তোপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১৯ এএম, ১০ মে ২০২১

ভারত মহাসাগরে পড়েছে চীনের ৫-বি রকেটের ধ্বংসাবশেষ। এ নিয়ে চীনের বিরুদ্ধে দায়িত্বজ্ঞানহীনতার অভিযোগ তুলে সরব হয়েছে নাসা। রকেটের ধ্বংসাবশেষ নিয়ে চীনের ভূমিকায় প্রশ্ন তুলেছে নাসা। নাসার দাবি, চীন দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করেছে।

রোববার (১০ মে) এক বিবৃতিতে নাসার প্রশাসক ও সাবেক মার্কিন সিনেটর বিল নেলসন বলেন, ‘মহাকাশ থেকে ধ্বংসাবশেষ ফিরে আসার ক্ষেত্রে মানুষ ও সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি নিরসনের দায়িত্ব মহাকাশে রকেট পাঠানো দেশগুলোর। এটা স্পষ্ট যে, চীন মহাকাশের অব্যবহৃত প্রযুক্তি সরঞ্জাম নিয়ে দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছে।’

নাসার বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মহকাশ থেকে অব্যবহৃত সরঞ্জাম পৃথিবীতে ভেঙে পড়ার সময় যাতে কোনো ক্ষতি না হয়, সে বিষয়টির ওপর নজর রাখা উচিত। চীনকে এই কাজ করার আগে আরও বেশি করে স্বচ্ছতা বজায় রাখার প্রয়োজন ছিল। বিশেষ করে যখন করোনা মহামারির মতো পরিস্থিতি চলছে, সে বিষয়টি মাথায় রেখে আরও বেশি সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন ছিল।’

যদিও চীনা সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয়েছে, এ বিষয়ে উদ্বেগের কোনো কারণ নেই। চীনের জাতীয় মহাকাশ সংস্থা জানায়, রকেটটির ধ্বংসাবশেষ আছড়ে পড়ার আগেই এর বেশিরভাগ অংশ পুড়ে শেষ হয়ে যায়। এর ফলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ খুব কম হবে।

চীন জানিয়েছে, মলদ্বীপের পশ্চিম দিকে মহাকাশের এসব অব্যবহৃত সরঞ্জাম জমা হয়ে রয়েছে। তবে নাসা জানায়, ওইসব সরঞ্জাম কোথায় জমা হয়ে রয়েছে, তা নিয়ে স্পষ্টভাবে এখনই কিছু জানা যাচ্ছে না।

গত ২৯ এপ্রিল চীনের বৃহত্তম রকেটের ১০৮ ফুট লম্বা লং মার্চ ৫বি ওয়াই ২ রকেট উৎক্ষেপণ করা হয়। রোববার সকালে সেটির ধ্বংসাবশেষ পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করে ও ভারত মহাসাগরে আছড়ে পড়ে

এর আগে গত বছর মে মাসে এরকমই একটি রকেট চীন উৎক্ষেপণ করেছিল। সেটি আইভরি কোস্টে বেশ কয়েকটি বাড়ির ওপর আছড়ে পড়ে। তবে ওই ঘটনায় হতাহতের কোনো ঘটেনি বলে জানা যায়।

সূত্র: সিএনএন ও হিন্দুস্তান টাইমস

ইএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]